এখানে শিবের পায়ের আঙ্গুলের পূজা হয়, শিবলিঙ্গের কোনও অস্তিত্ব নেই

author image
1:16 pm 25 Jul, 2017

Advertisement

বিশ্বের প্রতিটি কোণে শিবলিঙ্গের পূজা হয়। কিন্তু এমন একটি জায়গা রয়েছে যেখানে শিবলিঙ্গের নয় শিবের পায়ের আঙ্গুলের পূজা হয়।

এই প্রাচীন শিবমন্দির অবস্হিত রয়েছে রাজস্থানের মাউন্ট আবুতে। পাহাড়ের নামানুসারে মহাদেব ‘অচলেশ্বর’ মহাদেব নামে পরিচিত। মনে করা হয় যে মাউন্ট আবুর অস্তিত্ব ‘অচলেশ্বর’ মহাদেবের আঙ্গুলের কারণে রয়েছে।

মন্দিরের নিচে রয়েছে রহস্যময় প্রাকৃতিক গুহা।

মন্দির পরিসরের গর্ভগৃহের অভ্যন্তরে শিবের আঙ্গুলের ছাপ রয়েছে, ঠিক নিচের দিকে রয়েছে প্রাকৃতিক খাল। যেখানে শিবের ওপর ঢালা জল পড়ে। এই খালটি যতটাই সুন্দর ততটাই রহস্যময়। কেউ জানে না যে এই জল কোনদিকে যায়। আরো উল্লেখযোগ্য বিষয়টি হলো, এত জল পড়া সত্ত্বেও এই থাল কোনওদিন ভরে যায়নি। প্রচলিত কাহিনী অনুযায়ী এই আঙ্গুলটি হলো মহাদেবের ডানদিকে পায়ের বুড়ো আঙ্গুল। যার ভেতর রয়েছে বিশাল বড় খাল।

শিবের আঙ্গুলের মধ্যে রয়েছে মাউন্ট আবু।



এই বিশাল খালের নিচের দিকে বহু সন্ন্যাসী তপস্যা করতেন। এই খালের জন্য কয়েকবার তাঁরা বিপদগ্রস্ত হয়েছেন। সেই কারণে বশিষ্ঠ হিমালয়কে অনুরোধ করে তাঁর পুত্র নন্দী ভদ্রধনকে সেখান দিয়ে যাওয়ার জন্য বলেন।

স্কন্দ পুরাণ অনুযায়ী এই খালটি এতটাই গভীর যে পুরো নন্দী এখানে সমাহিত হয়ে যায়। কিন্তু সেই খালে তিনি স্হির হতে পারছিলেন না তখন ঋষিদের অনুরোধে মহাদেব তাঁর ডান পায়ের বুড়ো আঙুল দিয়ে বদ্রধনকে অচল করে দেন। সেই কারণে এই স্হানটির নাম অচলগড়।

পঞ্চধনুর নন্দীর প্রধান আকর্ষণ।

অচলেশ্বর মন্দিরে মহাদেবের আঙ্গুলের চিহ্ন ছাড়া রয়েছে পঞ্চ ধাতুর দ্বারা নির্মিত মূর্তি। মন্দিরে বাইরে তৈরি করা দ্বরিকাধিস দেবালয় খুব আকর্ষণীয়। মন্দিরের গর্ভগৃহের বাইরের দিকে রয়েছে বিষ্ণুর সমস্ত অবতারের চিত্র।


Advertisement

তবে এখন এই স্হানটি খালি পড়ে রয়েছে। শিবের আশীর্বাদ সপ্তঋষির তপভূমি হওয়ার কারণে জীবনদায়ী বনস্পতি আধ্যাত্মিক তপস্থলী রুপে সারা বিশ্বে পরিচিত।


  • Advertisement