Advertisement

বিমানে ফোন ফ্লাইট মোডে রাখার পেছনের কারণ কি আপনি জানেন

author image
4:33 pm 27 Jul, 2017

Advertisement

অনেক সময় আপনার মনে হয় যে আপনার ফোনে কোনও কল বা ম্যাসেজ না আসুক। কিন্তু পরিস্হিতি এমন থাকে যে ফোন সুইচ অফ করাও যায় না। এই সময়ে ফ্লাইট মোড খুব কাজে আসে। কিন্তু আপনি কি জানেন এই ফ্লাইট মোড ফিচার বিমানে ভ্রমণের সময় ব্যবহার করার জন্য রয়েছে।

টেক অফ্ বা ল্যান্ড করার সময় ফ্লাইট অ্যাটেন্ডেন্ট মোবাইল ফোনকে ফ্লাইট মুডে রাখার কথা বলেন।তাদের নির্দেশাবলী অনুযায়ী যাত্রীরা ফোনকে ফ্লাইট মোডে করে দেয়। কিন্তু কম সংখ্যক মানুষই জানেন যে এই রকম করতে বলার পেছনের কারণ কি। জানুন যে আপনার ফোন কিভাবে পুরো ফ্লাইট অপারেশন ব্লক করতে পারবে।


Advertisement

ফ্লাইট মোডে আপনার ফোনের সমস্ত ডেটা সার্ভিস যেমন ওয়াইফাই, জিএসএম, ব্লুটুথ ডিসেবল হয়ে যায়। আপনার ফোন যদি ফ্লাইট মোডে না থাকে তাহলে এর সিগন্যাল বিমানের সংবেদনশীল ইলেকট্রনিক ডিভাইসের সিগন্যালকে ব্লক করে।

ল্যান্ডিং এবং টেক-অফ ফ্লাইটের দুই সংবেদনশীল প্রক্রিয়া, এর জন্য অত্যন্ত সতর্কতা অবলম্বন করতে হয়। এই সময় পাইলটকে ফ্লাইট নিয়ন্ত্রণ কেন্দ্রে যোগাযোগ করতে হয়। এই সময় আপনার ফোনের সিগন্যাল এই যোগাযোগে বাঁধা সৃষ্টি করতে পারে, এর ফলে পাইলট ট্রাফিক কন্ট্রোল থেকে পাওয়া নির্দেশ ঠিক ভাবে শুনতে পারেন না।

বিমানে সফর করার সময় আপনি অন্যান্য ইলেকট্রনিক জিনিস ব্যবহার করতে পারবেন। যার মধ্যে থাকবে না ওয়াইফাই, জিএসএম, ব্লুটুথ। সেই কারণে বিমানে ক্যামেরা, রেকর্ডার, ইত্যাদি ব্যবহারের কারণে কোন সমস্যা হয় না। কিন্তু স্মার্টফোন, স্মার্টওয়াচ, ল্যাপটপ, ট্যাবলেট ব্যবহার করতে পারবেন না।

Advertisement


  • Advertisement