Advertisement

এই মহিলা 36 লক্ষ টাকা খরচ করে নিজেকে ড্রাগনের চেহারা দিয়েছেন, আপনিও দেখে ভয় পাবেন

author image
12:07 pm 6 Apr, 2018

Advertisement

প্যাশন মানুষকে কি না করিয়ে দেয়। যদি মানুষের মনে কোনও কিছু করার ইচ্ছা থাকে তাহলে তাকে কেউ আটকাতে পারবে না। বিশ্বে আজ পর্যন্ত যতগুলো রেকর্ড হয়েছে তার পেছনে রয়েছে মানুষের আবেগ। কয়েকজনের মাথায় সাফল্য পাওয়ার আকাঙ্ক্ষা থাকে। বিশ্বে আলাদা পরিচয় তৈরি করার চেষ্টা করেন।

এই রকমই আবেগ রয়েছে এই মহিলার যার ফটো ভাইরাল হচ্ছে। যেটা দেখার পর আপনাা অবাক হয়ে যাবেন।

আমেরিকার টেক্সাসের বাসিন্দা Eva Tiamat Medusa নিজেকে ড্রাগনের রূপ দিয়েছেন। আপনারাও অবাক হলেন তো। সবার মনে একটাই প্রশ্ন কেন এই মহিলাটি নিজেকে ড্রাগনে পরিণত করতে চায়।

ছোটবেলা থেকে মা-বাবা না থাকার জন্য ইভা সাপেদের সাথে থাকতেন। আস্তে আস্তে সাপদের প্রতি তাঁর ভালোবাসা এতটা হয়ে যায় যে তিনি তাঁর মুখ সাপ এবং ড্রাগনের অনুরূপ করে নেন। তিনি সাপদের পরিবারের অংশ মনে করেন।

Today was the most interesting day. Unlike the experience I had last time I went out and got on the bus, today's bus ride to my surgeon's office was very pleasant everybody was smiling and some people asked questions when I smiled and I made them feel comfortable and unintimidated. On the streets, and waiting for the bus at the bus stops, I got so many thumbs ups, people taking pictures, people stopping in the middle of the street to take video of me while I flick my tongue at them. Everybody giving me the thumbs up nobody was rude to me at all. I did legitimately scare a couple of people which was kind of funny and that in itself made my day. We went over the CAT scan results from yesterday and much to his surprise and to mine too the the report he got back from the reading said that there were no signs of any hernia so it's really crazy because there are visible signs, I have two, they are large, and I am in pain. The doctor said "well I can see them so I know they're there" so he what he's going to do is go to the hospital cuz it's in another part of town and do the reading himself on the reports. He says because he knows exactly where to look and what he's looking for he'll be able to do a more accurate reading and he's going to call me tomorrow afternoon and we will discuss and set the date for the surgery.

A post shared by Tiamat Dragon Lady (@tiamatdragonlady) on

এই চেহারা পাওয়ার জন্য ইভা 40 হাজার পাউন্ড অর্থাত্ প্রায় 36,60,840 টাকা ব্যয় করেছেন।


Advertisement
এই চেহারা পাওয়ার জন্য ইূভা কান কাটানোর সাথে নাক চাপা দিয়ে মাথায় শিং তৈরি করেছেন। শুধু তাই নয় জিভের দুটো ভাগ করেন। এখন তাঁর মুখ অনেকটা ড্রাগনের মতো দেখতে।

ইভা একজন ট্রান্সজেন্ডার। তাঁর আগের নাম রিচার্ড হার্নান্দেজ ছিল। এর আগে তিনি আমেরিকার একটি প্রাইভেট ব্যাঙ্কে কাজ করতেন।

নিজেকে এই রূপে দেখে Eva Tiamat Medusa খুব খুশি হয়েছেন। নতুন অবতার নিয়ে এই মহিলা এতটাই খুশি ছিলেন যে অস্ত্রোপচারের পর তিনি প্রথমে নাতি নাতনিদের সামনে আসেন।

ইভা খুব খুশি কারণ এখন সবাই তাকে ড্রাগন লেডি বলে চিনবে। সর্বজনীন স্থানে মানুষ তাকে দেখে অবাক যায়। যার কারণ ইভা নিজেকে বিশেষ বোধ করেন।

তিনি বলেছেন, এই চেহারা পাওয়ার জন্য বহু বছর ধরে অপেক্ষা করছেন। এই নতুন চেহারা পাওয়ার পরে, তিনি আত্মবিশ্বাস ফিরে পেয়েছেন।

এই শখ পূরণ করার জন্য ইভা ব্যঙ্কের চাকরি ছেড়ে দিয়েছেন। এখন তিনি তাঁর সমস্ত মনোযোগ ‘ড্রাগন লুক’ উপর দিয়েছেন।

Advertisement


  • Advertisement