Advertisement

দিনে চারবার গার্ড অফ্ অনার দেওয়া হয় শ্রীরামকে, 400 বছর পুরানো প্রথা

author image
11:35 am 22 Sep, 2017

Advertisement

এমন একটি মন্দির যেখানে শ্রীরামকে ভগবান নয় রাজা মনে করা হয়। সারাদিনে শ্রীরামকে চারবার গার্ড অফ অনার দেওয়া হয়। এর জন্য পুলিশ বাহিনী নিয়োজিত রয়েছে। গত 400 বছর ধরে এই প্রথা পালন করা হচ্ছে। মানুষ বিশ্বাস করে যে ঈশ্বর আজও এখানে শাসন করছেন।

ঝাসি থেকে 20 কিলোমিটার দূরে মধ্য প্রদেশের সীমান্তে বেওয়াওয়া নদীর তীরে অবস্থিত অর্খাতে রয়েছে এই রাম মন্দির। এই স্হানটি রাম রাজা সরকার নামে পরিচিত। বিদেশি পর্যটকদের জন্য অর্খা একটি বড় গন্তব্যস্হল। লক্ষ লক্ষ মানুষ এখানে আসেন। নায়েব তেহসিলদার হলেন মন্দিরের ব্যবস্হাপক। এছাড়া মন্দিরে নিয়োগ করা হয়েছে বহু সংখ্যক কর্মচারী। নিরাপত্তা জন্য 2 ডজন সিসিটিভি ক্যামেরা আছে। প্রতিদিন একজন পুলিশ কর্মী ভগবান রামকে সলামী দেয়। অর্খার হিন্দেশ তিওয়ারি বলেছেন মন্দিরের ভিতরে ছবি তোলার অনুমতি নেই। রাম বরাতের সময় 50 লক্ষ পুলিশকর্মী রামকে অভিবাদন জানান।

বলা হয় যে স্বয়ং রাম নিজেই এখানকার রাজা হতে চেয়েছিলেন। প্রায় 400 বছর আগে, 1554 থেকে 1594 খ্রিস্টাব্দে, রাজা মধুকর শাহ অর্খার রাজা ছিলেন। তাঁর স্ত্রী রানী কুনূর গণেশীর স্বপ্নে ভগবান রাম এসে নিজেরে রাজা বলার ইচ্ছা প্রকাশ করেন। রাজা মধুকর শাহ কৃষ্ণের ভক্ত ছিলেন। একবার তিনি রানী কুনূর গণেশীকে তাঁর সাথে বৃন্দাবনে যাওয়ার কথা বলেন কিন্তু তিনি বারণ করে দেন। এই নিজে দুজনের মধ্যে ঝগড়া হয়।


Advertisement
ইতিহাস অনুযায়ী রাজা রানীকে বলেন রাম যদি ঈশ্বর তাহলে তাঁকে অর্খাতে নিয়ে আসতে হবে। এরপর রানী অযোধ্যায় গিয়ে সরয়ু নদীর ধারে লক্ষ্মণ দূর্গার পাশে তপস্যা করতে শুরু করেন। এক মাস তপস্যা করার পর রানী সরায়ু নদীতে ঝাপ দেন। কিন্তু তিনি অলৌকিকভাবে নদীর বাইরে পৌছে যান। এটা ভগবান রামেরই চমত্কার বলে মনে করা হয়।

রানী যখন নিজের চোখ খোলেন তখন দেখতে পান তিনি রাম তাঁর কোলে বসে রয়েছে। রানী ঈশ্বরের কাছে অর্খাতে যাওয়ার প্রার্থনা করেন। শ্রীরাম অর্খাতে আসার জন্য রানীর সামনে তিনটি শর্ত রাখেন। প্রথমত, তিনি পুখ্য নক্ষত্রে অর্খার জন্য প্রস্হান করবেন। দ্বিতীয়ত, যেখানে তিনি বসবেন সেখানে তাঁকে স্হাপিত করা হবে। তৃতীয়ত, অর্খার রাজা তিনি হবেন, যেখানে তাঁর রাজতন্ত্র চলবে।

রামকে মূর্তি রূপে নিয়ে আসার জন্য আট মাস সময় লাগে। তারই মধ্যে রাজা মধুকর শাহ চতুর্ভুজ মন্দিরের নির্মাণ করান। এই মন্দিরের মধ্যে রামের প্রতিষ্ঠার প্রস্তুতি নেওয়া হয়। রামের ইচ্ছা অনুযায়ী, এই মন্দিরকে রাম রাজ সরকার নাম দেওয়া হয়েছিল এবং সেই সময় থেকে শ্রী রামকে অর্খার রাজা ঘোষণা করা হয়েছিল।

Advertisement


  • Advertisement