শশী কাপুরের শরীরকে কেন পতাকায় আবৃত করা হয়েছিল?

author image
12:22 pm 9 Dec, 2017

Advertisement

70 ও 80 এর দশকের রূপালী পর্দার নায়ক শশী কাপুর 4 ডিসেম্বর 2017, 79 বছর বয়সে কোকিলাবন হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

অনেক বছর ধরে তিনি অসুস্থ ছিলেন। শশী কাপুরের শেষ আচার অনুষ্ঠান পালন করা হয় মুম্বাইয়ের সান্তা ক্রুজ থানার কাছে অবস্থিত সান্তা ক্রুজ হিন্দু শশ্মানে।


Advertisement

বৃষ্টি এবং ভক্তদের চোখের জলের সাথে হিন্দি সিনেমার রোমান্টিক নায়ককে রাষ্ট্রীয় সম্মানের সাথে আবেগপূর্ণ বিদায় দেওয়া হয়।

তাঁর শরীরকে পতাকায় আবৃত করা হয়েছিল। শশী কাপুরের শরীর যখন শশ্মানে পৌছায় সেখানে উপস্হিত মুম্বাই পুলিশ প্রথাগত নিয়ম অনুযায়ী তাঁর শরীর থেকে পতাকা পৃথক করে। এরপর পুলিশের একটি দল তিন রাউন্ড ফায়ার করে শেষ সালাম দেয়।

সেখানে উপস্হিত ব্যক্তিরা এক মিনিট নীরবতা পালন করেন। শশী কাপুরকে শ্রদ্ধা নিবেদন করে। অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ায় সময় বৃষ্টি হওয়া সত্ত্বেও তাঁর হাজার হাজার ভক্ত সেখানে উপস্হিত ছিল।



এখন সকলের মনে প্রশ্ন উঠছে শশী কাপুরকে রাষ্ট্রীয় সম্মান নিয়ে শেষ বিদায় কেন দেওয়া হলো? প্রকৃতপক্ষে, ভারতে রাষ্ট্রীয় সম্মান বর্তমান এবং প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, কেন্দ্রীয় মন্ত্রী, মুখ্যমন্ত্রীকে দেওয়া হয়।

শশী কাপুর নেতা ছিলেন না, তিনি রাজনীতির সাথে যুক্ত ছিলেন না, তাও তাঁকে এই সম্মান দেওয়া হয়।

কেন্দ্রীয় সরকারের সাথে রাজ্য সরকারের দেশের সম্মানিত নাগরিককে রাষ্ট্রীয় সম্মান দেওয়ার অধিকার আছে।

শশী কাপুর পদ্মভূষণ পেয়েছিলেন, সেই কারণে তাঁকে রাষ্ট্রীয় সম্মান দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

এই সম্মান দেশের নাগরিক সম্মান (ভারত রত্ন, পদ্মবিভূষণ এবং পদ্মভূষণ) পেয়েছে এমন ব্যক্তিকে দেওয়া যেতে পারে। একই সময়ে, যারা রাজনীতি, সাহিত্য, আইন, বিজ্ঞান ও শিল্প ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখে, তারাও এই সম্মানের অধিকারী হতে পারে।

তার জন্য কেন্দ্রীয় বা রাজ্য সরকারের কাছে সুপারিশ করতে হয়। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী তাঁর মন্ত্রিপরিষদের সদস্যের সঙ্গে আলোচনা করে এই সিদ্ধান্ত নেন। রাষ্ট্রীয় সম্মান গ্রহণের সিদ্ধান্ত নেওয়া হলে, ডিজিপি ও রাজ্য পুলিশ কমিশনারকে নির্দেশ দেওয়া হয় এবং তারপর রাষ্ট্রীয় সম্মানের প্রস্তুতি করা হয়।

উল্লেখযোগ্য যে শশী কাপুর হিন্দি সিনেমার 160 টি চলচ্চিত্রে (148 টি হিন্দি এবং 12 টি ইংরেজি) কাজ করেছেন। 1938 সালের 18 মার্চ কলকাতায় তাঁর জন্ম। 60 ও 70-এর দশকে যখন তিনি জব জব ফুল খিলে, কন্যাদান, শর্মীলি, আ গালে লাগ যা, রোটি কাপড়া মাকান, দিওয়ারের মতো হিট ছবি করেছেন।


Advertisement

2011 সালে, শশী কাপুরকে ভারতীয় সরকার কর্তৃক পদ্মাভূষণ দেওয়া হয়। 2015 সালে দাদাসাহেব পুরস্কারও পান। তিনি কাপুর বংশের তৃতীয় ব্যক্তি
যিনি এই সম্মান পেয়েছেন।


  • Advertisement