Advertisement

অবশ্যই আপনি জানেন না তাজমহল সম্পর্কিত 7 টি গোপন তথ্য

author image
11:53 am 31 Oct, 2017

Advertisement

সমগ্র বিশ্বের মধ্যে সাতটি বিস্ময়ের মধ্যে একটি হলো তাজমহল। প্রেমের প্রতীক রূপেও বিখ্যাত তাজমহল। যারা তাজমহল দেখেছেন তারা খুবই ভাগ্যবান। সারা পৃথিবীতে সৌন্দর্য ও গৌরবের জন্য বিখ্যাত। তাজমহলের অভ্যন্তরে রয়েছে অনেক গোপন রহস্য, যা খুব কমই জন জানে। বহু বছর ধরে বন্ধ রয়েছে তাজমহলের বহু কক্ষ এবং এর পেছনে রয়েছে অনেক রহস্য।

মুঘল সম্রাট শাহজাহান 1631 সালে তাঁর স্ত্রী মমতাজ স্মরণের মার্বেল এই মহিমান্বিত সমাধি তৈরি করিয়েছিলেন। তৈরি করতে লেগেছে 20 বছর সময়। 1,000 হাতি এবং 20 হাজার শ্রমিকের কঠোর পরিশ্রমের পর তৈরি হয় তাজমহল। এই ঐতিহাসিক ঐতিহ্য সম্পর্কিত অনেক আকর্ষণীয় জিনিস আছে, যা মানুষ জানে না।

মুঘলদের নিষ্ঠুরতা লুকানোর চেষ্টা !

মনে করা হচ্ছে মার্বেলের এই কাঠামোর নিচে রয়েছে সিল প্রাচীর। যার ওপর প্লাস্টার করা হয়েনি। বলা হচ্ছে যে মুঘল সম্রাট শাহজাহান মুঘলদের নিষ্ঠুরতা লুকানোর চেষ্টা করার জন্য এই দরজাটি বন্ধ করে দেন। অনেকে মনে করছে তাজমহল তৈরি করার জন্য হিন্দু মন্দির ভেঙে ফেলা হয়েছে এবং সেটা দেওয়াল দিয়ে আড়াল করার চেষ্টা করা হয়েছে।

রহস্যময় 1089 ঘর

বলা হচ্ছে যে তাজ এর করিডোর গভীরতম পথের যদি ভালোভাবে গবেষণা করা যায় তাহলে দেখা যাবে ওপরের খিলান ও আয়তক্ষেত্রাকার ভেন্টিলার্সগুলি বিভিন্ন ধরনের মার্বেল এবং টিন্টস দিয়ে বন্ধ করা হয়েছে। খিলানের পেছনে রয়েছে 1089 ঘর। চুন আর ইঁট দিয়ে এই দরজা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।

প্রথম তলায় কক্ষ বন্ধ

যদি আপনি কখনও তাজমহল গিয়ে থাকেন তাহলে আপনি লক্ষ্য করেছেন যে প্রথম তলায় যাওয়ার সিঁড়িটি সিল করা হয়েছে। মনে করা হয় যে শাহজাহানের জীবনকাল থেকে এই সিঁড়িটি বন্ধ হয়ে রয়েছে। কথিত আছে যে, শাহজাহান সমাধি নির্মাণ এবং কোরান খোদাই-র জন্য প্রথম তলার কক্ষ থেকে মার্বেল সরিয়ে দেন।

নদীর ধাঁর থেকে মুমতাজের কবরের দৃশ্য চমৎকার দেখায়!


Advertisement

সাধারণত পর্যটকরা মুমতাজ মহলের কবরকে ভেতর থেকে দেখতে ভালোবাসেন। কিন্তু নদীর ধাঁর থেকে দেখলে এটি আরও সুন্দর দেখায়। যদি কেউ ভালোভাবে তাজ দেখে থাকে তাহলে চার তলার তাজমহলে আরও দুটি তলা দেখতে পারবেন। ভালোভাবে গবেষণা করলে জানা যাবে এখানে অনেক গোপন কক্ষ রয়েছে। যা বহু বছর ধরে বন্ধ রয়েছে।

তাজমহলের কক্ষের দেওয়ালে রয়েছে হিন্দু ভাস্কর্য

এই ছবিতে আপনি মার্বেলের প্ল্যাটফর্মের নীচে তাজমিলের রহস্যময় কক্ষের প্রান্তটি দেখতে পারবেন। শাহজাহান এই ঘরগুলিকে সম্পূর্ণভাবে বন্ধ করিয়ে দিয়েছেন। কিন্তু প্লাস্টার তৈরি করতে ভুলে গেছেন। সবসময় প্রশ্ন ওঠে যে যদি শাহজাহান তাজমহল সমাধি রুপে নির্মিত করে থাকেন তাহলে এত কক্ষ তৈরি করার কি প্রয়োজন ছিল এবং কক্ষ তৈরি করলেও লুকিয়ে রাখার কি দরকার ছিল?

কক্ষগুলির ছাদে রয়েছে হিন্দু শৈলীর চিত্র

কক্ষের ছাদগুলি ভালো করে দেখলে সেখানে হিন্দু-শৈলীর চিত্র দেখতে পারবেন। যদি শাহজাহান এই অংশগুলি নির্মাণ করিয়ে থাকেন তবে এখানে হিন্দু ছবি কেন রয়েছে? তাহলে এমনতো নয় শাহজাহান এই অংশের নির্মাণ তাজমহলের আগে করিয়েছিলেন। যদি এই কক্ষগুলির তালা খুলে দেওয়া হয় তাহলে এই ছবিগুলি দেখতে পারবেন। কিন্তু কেন এখানে হিন্দু ছবিটি তৈরি করা হয়েছে। তার উত্তর সবসময়ই গোপন থাকবে।

গোপন কক্ষগুলির কোণে হিন্দু চিত্রকলা এবং স্থাপত্যও দেখা যায়

22 টি কক্ষের ভেতরে কোণে রয়েছে 12 ফুট চওড়া এবং 300 ফুট লম্বা দেওয়াল। ভালো করে দেখলে বুঝতে পারবেন এখানে হিন্দু ছবি এবং নকশা দেখতে পারবেন। বায়ুচলাচল ও আলো কোনও ব্যবস্হা নেই।

এটা পড়ার পর আপনার মনে অনেক প্রশ্ন উঠছে যে ভারতীয় প্রত্নতাত্ত্বিক বিভাগ জনগণের কাছ থেকে কিছু লুকিয়ে রেখেছে অথবা তাজমহলের সাথে সম্পর্কিত রহস্য শুধু মানুষের একমাত্র কল্পনা?

Advertisement


  • Advertisement