জাপানের পুরুষরা ভালোবাসা খুঁজছেন সেক্স পুতুলের মধ্যে

author image
4:32 pm 26 Aug, 2017

সারা জীবন একা থাকা সম্ভব নয়। তারই একটি প্রকৃষ্ট উদাহরণ হলো জাপানের টোকিও শহরের 45 বছরের ফিজিওথেরাপিস্ট মাসায়ুকী। বিবাহিত জীবনে আগের মতো ভালোবাসা না থাকায় তিনি একটি অদ্ভুত উপায় বের করেছেন। রোমান্টিক জীবন কাটানোর জন্য মাসায়ুকী সিলিকনের একটি সেক্স পুতুল বাড়িতে নিয়ে এসেছেন। এই সেক্স ডলের সাথে সময় কাটিয়ে তিনি খুব খুশি।

এই পুতুলটির নাম হলো মায়ু। এই পুতুলটি মাসায়ুকীর সাথে সবসময় থাকে। এটা তার জীবনের এক অবিচ্ছেদ্য অংশ।

তার এই সেক্স ডলকে তিনি নিজেই তৈরি করেন। তাকে সেক্সি জামাকাপড় পড়ান। এরসাথে গয়না এবং নকল চুল দিয়েও সাজান। সেক্স ডল মায়ুর আসার পর মাসায়ুকীর জীবন সম্পূর্ণ পাল্টে গেছে। তিনি এই পুতুলটিকে সমুদ্র ভ্রমণেও নিয়ে যান। তিনি মায়ুকে হুইলচেয়ারে বসিয়ে ডেটে নিয়ে যান।

মাসায়ুকী বলেছেন, তার স্ত্রী মা হওয়ার পর থেকেই যৌনমিলনে অস্বীকার করতে থাকে। সেজন্য মাসায়ুকী একাকী বোধ করতেন। কিন্তু প্রথমবার যখন তিনি মায়ুকে দোকানে দেখেন তার পছন্দ হয়ে যায়।

মাসায়ুকী খুব আনন্দের সাথে মায়ুর সাথে জীবন কাটাচ্ছেন।

প্রতিবছর জাপানে 2 হাজারেরও বেশি সেক্স পুতুলের বিক্রি হয়। একটি পুতুলের দাম 6 হাজার ডলার ভারতীয় মুদ্রায় তার মূল্য 3.88 লক্ষ। সেক্স ডলের নির্মাতা মডিরা ইন্ডাস্ট্রির এমডি হাইড্রো সোপিয়া বলেছেন, “অধিক সংখ্যক পুরুষ এই পুতুলগুলি ক্রয় করছে কারণ তাদের মনে হয় পুতুলগুলি বাস্তবে তাদের সাথে কথা বলবে।”

জাপানে প্রতিদিন এই ধরনের পুরুষের সংখ্যা বাড়ছেন যারা এই সেক্স ডলের মধ্যে সত্যিকারের ভালোবাস খুঁজছে।