Advertisement

বিশ্বজুড়ে জনপ্রিয় এই কেটোজেনিক ডায়েট, তাড়াতাড়ি ওজন কমানোর জন্য কার্যকর

author image
1:48 pm 7 Sep, 2017

Advertisement

বিশ্বে বহু লোক তাদের বাড়তি ওজনের কারণে চিন্তায় রয়েছেন। ওজন কমানোর জন্য নানা ধরনের পদ্ধতি গ্রহণ করে তারা যেমন- জিমে যাওয়া, ব্যায়াম করা, ডায়েট করা। তবে ডায়েটের মধ্যে একটি ডায়েট সারা বিশ্বে ওজন কমানর ক্ষেত্রে জনপ্রিয় হচ্ছে।

আমরা কেটোজেনিক ডায়েটের কথা বলছি যা অন্যান্য ডায়েটের থেকে আলাদা।

কম কার্বোহাইড্রেটের এই ডায়েট তাড়াতাড়ি ওজন কমানোর ক্ষেত্রে উপকারী বলে মনে করা হচ্ছে। কেটো ডায়েটে হাই ফ্যাট এবং প্রোটিন সমৃদ্ধ খাদ্যের ওপর বেশি মনোযোগ দেওয়া হয়েছে।

এই খাদ্য থেকে পাওয়া পুষ্টির অনুপাত ঠিক এইরকমের 70 থেকে 80 শতাংশ স্বাস্থ্যকর ফ্যাট, 10 থেকে ২0 শতাংশ প্রোটিন এবং 5 শতাংশ কার্বোহাইড্রেট।

KetogenicDiet

যখন শরীরে ফ্যাটের মাত্রা বেশি এবং প্রোটিনের মাত্রা কমে যায়, তখন শরীরে উপস্হিত ফ্যাট থেকে শক্তি উৎপন্ন হয়। এর ফলে শরীরে কোটন্স বাড়তে থাকে, যার থেকে শরীর শক্তি পায় এবং ক্ষুধাও বাড়তে থাকে।

এই ডায়েটে ক্ষুধা বাড়ানোর ‘ঘরেলিন’ হরমোনের ওপর কাজ করে। শরীরে এই হরমোনের মাত্রা কম হওয়ার ফলে ক্ষুধা অনুভব হয় না।


Advertisement

diet

যদি এই ডায়েট কঠোরভাবে পালন করা যায় তখন এটি ওজন হ্রাস করার ক্ষেত্রে খুবই উপকারী। কেটোজেনিক ডায়েটের মাধ্যমে পেশী সুস্থ থাকে। এই ডায়েটকে নিজের রুটিনে যুক্ত করে একজন পুরুষ 450 ক্যালোরি এবং একজন মহিলা 150 অতিরিক্ত ক্যালোরি কমাতে পারবেন।

এই ডায়েটে চিনি ও কার্বোহাইড্রেট যুক্ত খাবার খেতে পারবেন না। যার মধ্যে রয়েছে রুটি, পাস্তা চাল, আলু, ফল, চকোলেট, বিয়ার ইত্যাদি।

diet

ডায়েট খুব সাবধানতার সাথে অনুসরণ করতে হয়। একজন পুষ্টিবিদ বা ডাক্তারের তত্ত্বাবধানে থেকে অনুসরণ করতে হবে কারণ তারা আপনার স্বাস্থ্য অনুযায়ী সঠিক খাদ্য তালিকা দেবে।

তবে প্রথমদিকে এই ডায়েট অনুসরণ করতে আপনার কষ্ট হবে। কিন্তু পরে আপনি আপনার শরীরে আগের থেকে বেশি শক্তি অনুভব করবেন।

Advertisement


  • Advertisement