বিশ্বের নজর থেকে লুকিয়ে রয়েছে আরেকটি জগত্, সকলের কাছে অজানা

author image
12:33 pm 31 Aug, 2017

Advertisement

1991 সালে এক ভিয়েতনামি কৃষক ফোন হ’কাবাঘ ন্যাশনাল পার্কে একটি গুহার আবিষ্কার করেছিলেন, যেটা তখনও পর্যন্ত কাউর নজরে আসেনি। আজ এই গুহাটি হাঙ্গ সন্ড গুহা নামে পরিচিত। এই গুহাটিকে বিশ্বের বৃহত্তম গুহাও বলা হয়।

যিনি এই গুহাটির আবিষ্কার করেছিলেন তার নাম ছিল খানা। খাদ্য ও কাঠের সন্ধানে, তিনি কয়েক সপ্তাহ ধরে জাতীয় উদ্যানের মধ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছিলেন। হঠাৎ তিনি পার্কের মধ্যে একটি গুহা দেখতে পেয়ে তার ভেতরে প্রবেশ করেন। গুহায় প্রবেশ করার সাথে তিনি নদীর আওয়াজ পান। গুহার ভেতরে শক্তিশালী বাতাসের আওয়াজও পান। এই সব শুনে ভয় পেয়ে ফেরত্ চলে আসেন। তারপর তিনি এই গুহাটির সম্পর্কে ভুলে যান।



এই ঘটনার কয়েকদিন পরে ব্রিটিশ কেভ রিসার্চ অ্যাসোসিয়েশনের হাউওয়ার্ড এবং ডেবি লিমেবার্ট ন্যাশনাল পার্কে রিসার্চ করতে আসেন। রিসার্চ করতে এসে তাদের সাক্ষাত্ হয়ে খানার সাথে। তিনি সেই গুহাটির সম্পর্কে তাদের কাছে বলেন, গুহার অভ্যন্তরে মেঘ ও নদী উপস্হিত রয়েছে। বেশ কয়েকবার চেষ্টা করার পর তারা গুহার রাস্তা খুঁজে পাননি। কিন্তু 2008 সালে খানার এই গুহাটির অনুসন্ধান করেন এবং তার রাস্তাও খুঁজে বার করেন। এরপর তিনি হাউওয়ার্ড এবং ডেবি লিমেবার্টকে খবর দেন।


Advertisement

এই গুহায় প্রবেশ করার জন্য ভূমি থেকে 262 কিমি নীচে যেতে হবে। হাঙ্গ সন্ড নামের এই গুহাটি 5 কিলোমিটার দীর্ঘ। এই গুহাটির আয়তন এতটাই বড় যে এর ভেতর রয়েছে নদী, জঙ্গল এবং নিজস্ব আলাদা আবহাওয়া। গুহার মধ্যে বাদুড়, পাখি, বানর এবং অন্যান্য অনেক প্রাণী রয়েছে। গুহা সৌন্দর্য শব্দে বর্ণিত করা সম্ভব নয়।


  • Advertisement