Advertisement

বরফপূর্ণ আন্টার্কটিকা পরিবর্তিত হচ্ছে সবুজে, এটা মানবজাতির জন্য সত্যিই ভয়ঙ্কর

author image
1:51 pm 10 Aug, 2017

Advertisement

 

গ্লোবাল ওয়ার্মিং কিভাবে আমাদের পরিবেশ উপর প্রভাব ফেলছে তার উদাহরণ যদি আপনি দেখতে চান তাহলে অ্যান্টার্কটিকার পরিবর্তিত পরিস্হিতিকে দেখতে পারেন। গবেষকরা তাঁদের গবেষণায় পেয়েছেন এখানে উপস্হিত বরফের পুরু স্তরের উপরে শৈবাল হতে শুরু হয়েছে।

1950 সালে এই শৈবাল ক্রমবর্ধমানভাবে বৃদ্ধি পেতে শুরু করেছে। প্রতি বছর গত বছরের তুলনায় 4 থেকে 5 শতাংশ পরিমাণে শৈবাল জন্মাত শুরু করেছে। এই রকম হওয়ার কারণ হলো জলবায়ুর ক্রমবর্ধমান পরিবর্তন।

এই গবেষণাটি করেছেন কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয় এবং ব্রিটিশ অ্যান্টার্কটিক সার্ভের গবেষকরা।

এই গবেষণা অংশগ্রহণকারী গবেষক বলেছেন,

“সকলের কাছে অ্যান্টার্কটিকা বরফের স্হান রূপে পরিচিত। কিন্তু আমরা গবেষণায় জানতে পেরেছি এখানে কয়েকটি স্হান সবুজ। আস্তে আস্তে বরফের সাদা জায়গার স্হান নিয়েছে সবুজ, যেটা সময়ের সাথে সাথে বাড়ছে।”

এরপর তিনি বলেছেন


Advertisement

“আমরা আমাদের গবেষণায় জেনেছি গ্লোবাল ওয়ার্মিং কারণে অ্যান্টার্কটিকার বৃহত্ অংশে নাটকীয়ভাবে পরিবর্তন আসছে।”

গবেষকরা তাঁদের গবেষণাকে কারেন্ট বায়োলজি নামের জার্নালে প্রকাশিত করেছেন। এই জার্নালে বলা হয়েছে বরফপূর্ণ মহাদেশের 1 শতাংশ অংশ সবুজ। কিন্তু এই কথাটিকে অস্বীকার করা যায় না যে বরফ গলে যাওয়ার পর এখানে জন্ম নেওয়া শৈবাল বিশ্বের পরিবর্তিত ছবির দিকে ইসারা করছে।

 

 

Advertisement


  • Advertisement