Advertisement

আহমেদাবাদ-মুম্বাই বুলেট ট্রেন প্রকল্প সম্পর্কে 10 টি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়

author image
12:35 pm 14 Sep, 2017

Advertisement

সূচনা হতে চলেছে নরেন্দ্র মোদি সরকাররের স্বপ্নের বুলেট ট্রেন প্রকল্প। জাপানের প্রাইমমিনিস্টার শিনজো আবে ও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর উপস্থিতিতে গুজরাতের আহমেদাবাদে শিলান্যাস বুলেট ট্রেনের প্রকল্প। সরকারের পরিকল্পনা হচ্ছে 2022 সাল পর্যন্ত এটি প্রস্তুত করা। সরকারের মতে স্বাধীনতার 75 বর্ষপূর্তিতেই দেশের মাটিতে চলবে লেট ট্রেন।

এবার বুলেট ট্রেনের বিশেষত্ব জানুন:

  • ভারতে চলমান বুলেট ট্রেনের সর্বোচ্চ গতির হবে 350 কিলোমিটার। এই প্রকল্পটি পাঁচ বছরের মধ্যে প্রস্তুত হবে।
  • সম্ভবত ট্রেনের জন্য এর লক্ষ দশ কোটি টাকা খরচ হবে।
  • এই ব্যয়বহুল প্রকল্পের জন্য জাপান ভারতকে 88 হাজার কোটি টাকার ঋণ দিচ্ছে। 1 শতাংশ সুদে দেওয়া এই ঋণ ফেরত্ দেওয়ার সময়সীমা 50 বছর পর্যন্ত নির্ধারণ করা হয়েছে।
  • এই প্রকল্পের জন্য বছরে কুড়ি হাজার কোটি টাকা খরচ হবে।
  • এই প্রকল্পের অধীনে দেশের 21 কিলোমিটার দীর্ঘতম টানেলের নির্মাণ করা হবে, যার মধ্যে 7 কিলোমিটার সমুদ্রের মধ্যে থাকবে।
  • মুম্বাইয়ের ভূগর্ভস্থ অংশ ব্যতীত পুরো করিডোর এলিভেটেড হবে। বাকি অন্যান্য স্টেশনও এলিভেটেড হবে।
  • প্রতিদিন 36 হাজার লোক এই বুলেট ট্রেনে ভ্রমণ করতে পারবেন।
  • বুলেট ট্রেন 320 কিলোমিটার সর্বোচ্চ গতিতে চালানো হবে।
  • সীমিত স্টপ থামার স্হিতিতে মুম্বাই থেকে আহমেদাবাদ পৌঁছানোর জন্য 2 ঘন্টা 7 মিনিট সময় লাগবে। সমস্ত স্টপে থামলে 2 ঘন্টা 58 মিনিট সময় লাগবে।
  • মুম্বাই ও আহমেদাবাদের মধ্যে মোট 12 টি স্টেশন থাকবে। মুম্বাই, থানা, ভিরার, বোহসার, বাপী, বিলিমোরা, সুরত, ভুচ, বোদোড়ারা, আনন্দ, আহমেদাবাদ ও সাবরমতি।

Advertisement

 

Advertisement


  • Advertisement