Advertisement

আপনার শিশুকে যৌন নির্যাতন থেকে রক্ষা করার জন্য শেখান এই 8 জিনিস

author image
1:10 pm 26 Mar, 2018

Advertisement

সম্প্রতি ডেইসি ইরানি জানান, ছোটবেলায় যখন জনপ্রিয় শিশুশিল্পী ছিলেন তখনই তাঁকে ধর্ষণের শিকার হতে হয়েছিল। তখন তাঁর বয়স ছিল মাত্র ছয়। এই বিষয়ে কথা বলতে 60 বছর সময় লেগেছে।বাস্তবে আমাদের সমাজের শিশুদের সাথে এই বিষয়ে খোলাখুলি কথা বলা হয় না। তাই এই ধরনের ঘটনা ঘটলে বাচ্চারা ভয় পেয়ে যায়। যদি আপনারা আপনাদের সন্তানদের নিরাপত্তা চান তহলে এই বিষয়ে পরিষ্কার ভাবে কথা বলুন। তাদের শেখান কিভাবে নিজেদের নিরাপদে রাখা যায়।

আজকাল শিশুদের বিরুদ্ধে যেভাবে যৌন অপরাধ বাড়ছে। সেক্ষেত্রে আপনাদের সন্তানের নিরাপদের দিকটি নিশ্চিত করতে হবে। যৌন নিপীড়ন থেকে বাঁচার জন্য বাচ্চাদের এই বিষয়ে শেখান।

1. বাচ্চাদের তাদের শারীরিক অঙ্গ সম্পর্কে বলুন

বাচ্চাদের তাদের শারীরিক অঙ্গ যেমন- হাত, পা, নাক, কান, মাথা, ইত্যাদি সম্পর্কে বলে থাকি। কিন্তু গোপন স্হানের সম্পর্কে বলি না। শিশুদের তাদের শরীরের ব্যক্তিগত অংশের নাম বলুন। এরকম করলে তাদের সেই সব অংশে যদি কেউ ভুলভাবে স্পর্শ করে তাহলে আপনাদের বলতে পারে।

2. আপনার সীমা সম্পর্কে বলুন

বাচ্চাদের বলুন তাদের গোপন জায়গায় কেউ স্পর্শ করতে পারবে না। এরসাথে তারাও কাউর গোপন স্হান স্পর্শ করবে না। এই বিষয়ে বাচ্চাদের সাথে কথা বলা সহজ নয়। কিন্তু তাদের নিরাপত্তা জন্য গুরুত্বপূর্ণ।

3. কোন গোপন কিছু থাকে না

“যদি তুমি কাউকে এই বিষয়ে বলো তাহলে সে তোমাকে বকবে “, “যদি তুমি তোমার মা-বাবাকে বলো তাহলে তারা তোমাকে ভালোবাসবে না “, “যদি তুমি কাউকে বলো তাহলে তোমার সাথে খেলবো না “। যারা বাচ্চাদের শোষণ করে তারা সাধারণত এই ধরনের কথা বলে বাচ্চাদের ভয় দেখায়। সেই কারণে বাচ্চাদের বোঝান যে মা-বাবার থেকে কোনও কিছু লুকিয়ে রাখা উচিত নয়। যে কোনও কথা হোক না কেন মা-বাবা সবসময় ভালোবাসবে।

4. ভাল এবং খারাপ স্পর্শ

বাচ্চাদের শেখানো উচিত কারা তাদের ভালোবেসে স্পর্শ করছে, কারা তাদের ভুলভাবে স্পর্শ করছে। যদি কেউ তাদের মাথায় হাত রাখে মা-বাবার মতো তাহলে সেটা ভালো স্পর্শ। যদি কেউ তাকে এমনভাবে স্পর্শ করছে যাতে তার অস্বস্তিকর মনে হচ্ছে তাহলে সেটা বাজে স্পর্শ। তখনই তাকে চিৎকার করে প্রতিবাদ করতে হবে।


Advertisement

5. নিরাপদ মানুষ

বাচ্চাদের তাদের পরিবারের লোক এবং আত্মীয়দের সম্পর্কে বলুন। অনেকসময় আত্মীয়রা শোষণ করে। আর সেটা বুঝতে হবে বাচ্চাদের। বাইরের ব্যক্তিদের সাথে না যাওয়ার পরামর্শ দিতে পারেন। পরিচিত ব্যক্তিদের থেকে শিশুদের রক্ষা করার জন্য তার আশেপাশে থাকুন। চারপাশে থাকা ব্যক্তিদের গতিবিধির ওপর নজর রাখুন।

6. ছবি তুলবে না

বাচ্চাদের বোঝানো উচিত যদি কেউ তাদের গোপনাঙ্গের ফটো তুলতে চায় তাহলে তাকে তখনই প্রতিবাদ করা উচিত। শীঘ্রই মা-বাবাদের জানানো উচিত কে তাদের ফটো তোলার চেষ্টা করছে।

7. কোড ওয়ার্ড

বাচ্চাদের এমন কোড ওয়ার্ড শেখান যেটা শুধুমাত্র আপনি এবং আপনার সন্তান জানবে। যখন তারা অস্বস্তিকর বা কারো সাথে অসুরক্ষিত বোধ করবে তখন তারা কোড ওয়ার্ড বলে আপনাদের জানাতে পারবে।

8. প্রশ্নের উত্তর দেওয়ার জন্য প্রস্তুত থাকুন

যখন আপনি তাদের শারীরিক অঙ্গ সম্পর্কে বলবেন, অবশ্যই, তাদের মন অনেক ধরণের প্রশ্ন থাকবে। এই পরিস্থিতিতে, সহজেই শিশুদের প্রশ্নের উত্তর দিন। আপনার ওপর বিশ্বাস করতে শুরু করবে এবং আপনার সাথে সবকিছু ভাগ করে নেবে।

এই ভিডিওটি দেখে আপনি এইভাবে আপনাদের সন্তানদের শরীরের অঙ্গ সম্পর্কে বোঝাতে পারবেন।

Advertisement


  • Advertisement