দেশে 2 কোটিরও মানুষ অবৈধভাবে বসবাস করছে, দেশের নিরাপত্তা বিঘ্নিত হওয়ার আশঙ্কা

author image
11:57 am 9 Sep, 2017

ভারতে 2 কোটিরও বেশি মানুষ অবৈধভাবে বসবাস করছে। কেন্দ্রের মতে অবৈধভাবে যারা বসবাস করছে তারা দেশের নিরাপত্তা বিঘ্নিত করতে পারে। উদ্বেগের সবচেয়ে বড় বিষয়টি হলো এরা অবৈধভাবে রেশন কার্ড, ভোটার কার্ড এবং আধার কার্ডও তৈরি করেছে।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের উচ্চপদস্হ আধিকারিক জানিয়েছেন, এই রকম পরিস্হিতিতে ভবিষ্যতে জনসংখ্যার সাথে যুক্ত বিষয়কে গভীরভাবে প্রভাবিত করবে।

Rohingya Muslims

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মতে ভারতে প্রায় 40 হাজার রোহিঙ্গা মুসলমান রয়েছে। ভারতে বসবাসরত এই রোহিঙ্গা মুসলমানদের সরকার অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তার ক্ষেত্রে বিপদ বলে মনে করছে। জম্মু ও কাশ্মীরে এদের সংখ্যা সবথেকে বেশি। রেকর্ড অনুযায়ী, এই শরণার্থীদের মধ্যে 11 হাজার ইউএনএইচসিআর সঙ্গে নিবন্ধিত। ইউএনএইচসিআর হচ্ছে উদ্বাস্তুদের জন্য কাজ করে এমন জাতিসংঘের সংস্থা।

muslim

রেকর্ড বলছে যে ভারতে অবৈধভাবে 2 কোটিরও বেশি বাংলাদেশী বসবাস করছে। কেন্দ্র এদের সকলকে দেশে ফেরত্ পাঠানোর পরিকল্পনা করছে। কেন্দ্রের মতে অবৈধভাবে বসবাসের সংখ্যা সবথেকে বেশি হরিয়ানা, জম্মু, হায়দরাবাদ, উত্তরপ্রদেশ এবং দিল্লিতে।

রোহিঙ্গা শরণার্থীদের দায়ের করার পিটিশনের ওপর সুপ্রীম কোর্ট প্রায় 40 হাজার রোহিঙ্গা মুসলমানকে দেশ থেকে বের করে দেওয়ার পরিকল্পনার বিষয়ে কেন্দ্র সরকারের কাছে জবাব চেয়েছে। কেন্দ্র 11 সেপ্টেম্বর জবাব দেবে। জবাবে সরকার রেকর্ডের সাথে এই অবৈধ বাসিন্দাদের দ্বারা অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তা বিঘ্নিত হওয়ার বিষয়ে জোর দেবে।

rohingya

রোহিঙ্গা সম্প্রদায়ের দুইজন ব্যক্তি মোহাম্মদ সলিমুল্লাহ এবং মোহাম্মদ শাকির পিটিশন দায়ের করেছেন। এই পিটিশনে বলা হয়েছে, “রোহিঙ্গা সম্প্রদায়কে তাদের দেশ মায়ানমারে ফেরত্ পাঠানোর প্রস্তাব দিয়ে এখানের সরকার নিরাপত্তা নিশ্চিত করার দায়িত্ব পালন করতে ব্যর্থ হয়েছে।”

এই রোহিঙ্গা মুসলমানরা ভারতের পাশাপাশি মায়ানমারের সীমার কাছাকাছি বহু দেশে আশ্রয় নিয়েছে।