কলকাতাকে অপছন্দের ৬টি কারণ

author image
4:41 pm 24 May, 2016

কলকাতা শিল্প–সংস্কৃতির শহর। কলকাতা উন্নত রুচির শহর। অসংখ্য কারণে কলকাতার নামডাক। যেমন সুস্বাদু খাবার, উত্সব, হৃদয় ছুঁয়ে যাওয়া গান, ফুটবল নিয়ে মাতামাতি ছাড়াও আরও অনেক কিছু।

যাই হোক, কোনও শহরের বাসিন্দাদের অবজ্ঞা না করেও বলতেই হচ্ছে, একটি শহরকে পছন্দ করার পেছনে যেমন নির্দিষ্ট কিছু কারণ থাকে তেমনই অপছন্দ করারও কিছু কারণ আছে। কলকাতাবাসীরা দয়া করে রাগ করবেন না।

কলকাতাকে অপছন্দ করার কারণ হিসেবে একটি তালিকা আমরা তৈরি করেছি। এর সঙ্গে আরও একটি কারণ স্পষ্ট করে জানিয়ে দিতে চাই, সেটা হল, ক্রিকেট ছাড়াও অন্যান্য খেলাধূলার প্রতি এই শহরের ভালোবাসার জন্যে আমি কলকাতাকে শ্রদ্ধা করি।

1. আবহাওয়া

প্রচন্ড গরমের সঙ্গে ভ্যাপসা ঘাম কলকাতার আবহাওয়াকে অসহ্য করে তোলে। গরম ও শীত কালের মধ্যে মনোরম আবহাওয়া আপনি খুব কমই পাবেন। তবে এর মধ্যে মৌসুমি বায়ু কিছুটা মুক্তির শ্বাস ফেলতে দেয়। আর মৌসুমি বায়ুর হাত ধরে আসে বৃষ্টি। অল্প বৃষ্টিতেই কলকাতা চলে যায় জলের তলায়। বিঘ্নিত হয় রেল ও সড়ক পরিবহণ।

2. ধীর গতি

অন্যান্য বড় শহরগুলির তুলনায় কলকাতার জীবনযাত্রা অনেক শ্লথ। যাইহোক, এটা পছন্দের না অপছন্দের সেটা ব্যক্তি বিশেষের ওপর নির্ভর করে। কেউ এর মধ্যে থেকে ভালো কিছু খুঁজে পান আবার কারও কাছে এটা অসহ্য।

3. বিতর্ক

কোনও বিষয়ে নিজস্ব মতামত থাকা কখনই খারাপ নয়। কিন্তু কখনও-কখনও কোনও বিতর্কে আপনার অংশগ্রহণ অপ্রাসঙ্গিক মনে হতে পারে। ধরুন, কোনও বিষয়ে দু’জন তর্ক করছেন। আর তৃতীয় কেউ রাস্তা দিয়ে হেঁটে যাচ্ছিলেন। কিন্তু তাঁদের তর্ক শুনে তিনিও তাতে যোগ দিয়ে বলতে লাগলেন, কে ঠিক। ব্যস, বুঝে নিন আপনি কলকাতায় আছেন।


4. আলোচনা চলতেই থাকে

তাদের প্রতিদিনের জীবনে প্রাসঙ্গিক বা অপ্রাসঙ্গিক যাই হোক না কেন জাতীয় এবং আর্ন্তজাতিক যে কোনও বিষয়েই অতি সহজে তারা দীর্ঘ আলোচনা চালিয়ে যেতে পারেন।

5. বনধ

যে কোনও কারণেই হোক কলকাতাবাসী অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করে কখন হরতাল ঘোষণা করা হবে। রাজনৈতিক দলগুলিও তাদের দাবি–দাওয়া জানানোর জন্য বনধ ছাড়া অন্য কোনও পথ খুঁজে পায় না। সব কিছুতেই রাস্তা আটকানো এবং মিছিল চলে আর বারোটা বাজে ট্রাফিকের।

6. আরাম করা

অন্যান্য বড় শহরগুলির সঙ্গে তুলনা করলে, পেশাদারি মনোভাবের ক্ষেত্রে কলকাতা অনেক পিছিয়ে। কাজের জায়গায় সংখ্যাগরিষ্ঠ মানুষেরই গয়ং গচ্ছ মনোভাব। যা মোটেই কাজের কথা নয়।

Discussions



TY News