কলকাতার 17টি স্থান যা আপনার প্রিয় বন্ধুর সাথে একবার অবশ্যই ঘুরে দেখা উচিত

2:25 pm 18 May, 2016


সংস্কৃতি ও রাজনীতির ইতিহাসে মোড়া কলকাতা হলো উদার মনের, কল্পনায় বিলীন মানুষের জায়গা। একটু পুরনো ধাঁচের বলে ঘষে-মেজে স্থান গুলোকে উন্নয়ন করার কথা ভাববেন না।

তবে আজ আপনাদের কিছু জায়গার সম্পর্কে বলছি যা আপনারা আপনাদের প্রিয়জনের সঙ্গে আন্তরিক খোশগল্পের জন্য যেতে কখনই ভুলবেন না।

1. তিরেত্তা বাজারের জল-খাবার দিয়ে সকালটা শুরু করুন।

কীভাবে একজন কলকাতার এক প্রাচীনতম বাজারে কোনরকম উঁকিঝুঁকি ছাড়াই কলকাতা সম্পর্কে কথা বলা শুরু করতে পারে?

এটি একটি শতাব্দী প্রাচীন জল-খাবারের বাজার যা নিয়ে কলকাতাবাসীরা গর্ব করে। কিন্ত আপনি যদি এই জায়গার আসল স্বাদ পেতে চান তাহলে নিশ্চিত ভাবে আপনাকে সকাল 7 টার আগেই পৌছে যেতে হবে।

2. আহিরিটোলা ঘাট থেকে কুমারটুলির পর্যন্ত পায়চারি করে একটি সুন্দর অভিজ্ঞতা অর্জন করুন।

এই নদীতীরে অদ্ভুত ভ্রমন অন্য শহরের অন্য রাস্তায় ভ্রমনের মত এত মনোরম নয়, তা সত্ত্বেও, পুরনো কলকাতার অভিজ্ঞতা এই রাস্তার মাধ্যমে সবচেয়ে নিখুঁত ভাবে পাওয়া যাবে। এখানকার পেল্লাই বাড়ি গুলোতে ইন্দো-ইউরোপিয়ান স্থাপত্যের ছাপ সত্যিই দেখার মত।

3. বাগবাজারের চায়ে চুমুক দিতে-দিতে কুমোরটুলির প্রতিমা নির্মাতাদের প্রতিমা নির্মান করতে দেখুন।

আপনি হয়তো কলকাতার দুর্গা, কালীর মূর্তি দ্বারা অভিভূ৩ হতে পারেন, কিন্তু কিভাবে সেগুলো তৈরী হছে সেটা দেখবেন না? এটা একটি এককালীন অভিজ্ঞতা যা আপনি নিশ্চয়ই হারাতে চাইবেন না। আর সবশেষে পতুয়াপাড়ায় হানা দেওয়ার পর, বাগবাজার ঘাটের মশলা চায়ে চুমুক দিতে ভুলবেন না যেন।

4. মিনার্ভা থিয়েটার এ একটি নাটক দেখে আসুন।

আপনি এটি করতে কখনোই ভুলবেন না যদি আপনি শিল্প ও সাহিত্য প্রেমী হন!

5. রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের বসবাস, জোড়াসাঁকোর ঠাকুরবাড়ীটা একবার ঘুরেই আসুন।

আপনি কি জানতে চান কেন বাঙালি রবীন্দ্রনাথ-কে দেবতুল্য মনে করে? যদি উত্তর হ্যাঁ হয়, তাহলে আপনার জোড়াসাঁকোর ঠাকুরবাড়ীতে অতি অবশ্যই একটি দিন ঘুরে আসা উচিত।

6. ময়দানে ফুটবল খেলুন।

এটাই হল কলকাতা। হাফপ্যান্ট পরে, খালি পায়ে ময়দানের মধ্যে লাফিয়ে নেমে পড়ুন ফুটবল খেলতে। আর, যদি সময়টা বর্ষাকাল হয়, তালে মজা দ্বিগুণ হয়ে যায়। যতই হোক, দিল তো বাচ্চা হ্যায় জি!

7. ঐতিহাসিক ইডেন গার্ডেনে একটি ম্যাচ উপভোগ করুন।

আমাদের কি সত্যিই এটা বলার জন্য কোনো কারণ দর্শানোর প্রয়োজন? দি ইডেন গার্ডেনস – এই নামটিই যথেষ্ট।

8. ময়দানের রাস্তায় ট্রামের অভিজ্ঞতা নিন।

সক্কাল-সক্কাল এসপ্লানেড থেকে দক্ষিন কলকাতার দিকের কোনো ট্রামে উঠে পড়ুন।

আপনি বৃস্তিত সবুজায়নের মধ্যে দিয়ে যাত্রা শুরু করবেন যার পিছনের দিকে দেখতে পাবেন ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল হল এবং সামনে দিয়ে দৌড়ে বেরোচ্ছে সতস্ফুর্ত ঘোড়ার দল। অসম্ভব এক প্রাকৃতিক সৌন্দর্য, নন্দনকাকন বলা চলে!

9. নিউ মার্কেটে ফেরিওয়ালাদের সাথে দরাদরি করুন।

আপনি কলকাতায় এসে সত্যিই কিছু করেন নি যদি না আপনি আপনার পছন্দের জিনিসটির জন্য ঐতিহাসিক নিউ মার্কেট এ ফেরিওয়ালাদের সাথে দর কষাকষি করে থাকেন।

10. স্টার থিয়েটারে একটি সিনেমা দেখুন।

চলুন ইতিহাস ও বিনোদনের এক অপরূপ মেলবন্ধন ঘটানো যাক স্টার থিয়েটারে।


11. হাতে বিয়ার ভর্তি গ্লাস নিয়ে Fairlawns খোশগল্পে নিজেকে সপর্মন করুন।

এটি একটি উন্মুক্ত রেস্টুরেন্ট যেখানে মদের মধ্যে শুধুমাত্র বিয়ার পরিবেশন করা হয়। এবং আপনি যদি বিয়ার প্রেমী হন, তবে এই স্থান এ একবার ঘুরে না যাওয়া অত্যন্ত নিন্দনীয় কাজ করা হবে।

12. Oly Pub এ আসুন এবং সুস্বাদু গোমাংসের নানা খাওয়ার উপভোগ করুন।

দেশের প্রাচীনতম পাবের মধ্যে Oly pub এখনও কলকাতার সেই সবচেয়ে জনাকীর্ণ স্থান। এখানে একটি ধীর ও শান্ত বাতাবরণ এবং তার থেকেও ধীর এখানকার কর্মীরা। মদ এবং গোমাংসের সাথে খোশগল্প করার জন্য এ হলো এক আদর্শ স্থান।

13. আউটট্রাম ঘাটের সুস্বাদু পাওভাজি।

আমরা গর্বের সাথে এই জায়গা মুম্বাই এর জুহু বীচ-এর সাথে তুলনা করতে পারি এবং গঙ্গা বক্ষে নৌকা ভ্রমন সবকিছুর উর্ধ্বে, এককথায় স্বর্গ সুখ!

14. নদীর পার্শবর্তী রেল পথ ধরে হাটুন বাগবাজার থেকে প্রিন্সেপ ঘাট অবধি।

এটি হলো কলকাতার সবচেয়ে উপভোগ্য স্থানগুলোর মধ্যে একটি।

কলকাতার প্রেমিকরা যেমন টাঙ্গায় চড়ে ভিক্টোরিয়ার পাশ দিয়ে এগিয়ে যায়, বন্ধুবান্ধব দের জন্যও রয়েছে গঙ্গা যেখানে তারা নদীর স্রোতের সাথে নিজেদের ভাসিয়ে দিতে পারে এবং প্রকৃতিকে তাড়িয়ে তাড়িয়ে উপভোগ করতে পারে।

15. বড়বাজারের বিস্তৃত ফুলের বাজার ধুরে দেখুন এবং পায়ে হেঁটে হাওড়া সেতু পারাপার করুন।

মল্লিক ঘাটের কাছে ফুলের বাজারটি হল দেশের সবচেয়ে বড় এবং প্রাচীনতম বাজার গুলির মধ্যে একটি, এবং এটি আপনার একটি নিছকই ভুল হবে যদি আপনার কলকাতার ভ্রমন তালিকায় এই স্থানটির নাম না রাখেন।

আর, পায়ে হেটে “ঝুলন্ত” হাওড়া সেতু পার, এটা এমনই একটা অভিজ্ঞতা যা ভাষায় বর্ণনা করা যাবে না!

16. দক্ষিন পার্ক স্ট্রিট-এর সমাধিক্ষেত্রে অনেক অজানা কে জানুন।

কলকাতার এক প্রাচীনতম কবরস্থান দক্ষিন পার্কস্ট্রিট সেমিট্রি। একটি স্থাপত্য নন্দন এবং দর্শনের ও জায়গা, যদি আপনি উভয় ইতিহাস, শিল্প ও স্থাপত্যে প্রেমী হন।

17. কলেজ স্ট্রিট ঘুরে দেখুন, এবং প্যারামাউন্ট এর শরবতে চুমুক দিন।

আপনি যদি সত্যিই বই প্রেমী হন, পুরোনো দিনের স্থাপত্যের প্রতি টান থাকে অথবা আপনি কর্মব্যস্ত কলকাতা দেখতে চান, তবে কলেজ স্ট্রিট চত্তর ঘুরে দেখা আর দরাদরি করে বই কেনা আপনার তালিকায় অবশ্যই থাকা উচিত।

কিন্তু তারপর প্রাণ ঠান্ডা করা প্যারামাউন্ট এর শরবত এ চুমুক দিতে ভুলবেন না যেন!

যান, কলকাতা ঘুরে দেখুন, মজা করুন এবং এক অনবদ্য অভিজ্ঞতা সঞ্চয় করুন।

Popular on the Web

Discussions