পাকিস্তানে সমস্ত খৃস্টান চ্যানেলের সম্প্রচার বন্ধ করে দেওয়া হলো

5:39 pm 22 Nov, 2016


আরেকবার পাকিস্তানে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের অধিকার লঙ্ঘনের উদাহরণ সবার সামনে উঠে আসলো। পাকিস্তানে গণমাধ্যম নিয়ন্ত্রক সংস্থা সমস্ত খৃস্টান টেলিভিশন চ্যানেল নিষিদ্ধ বলে ঘোষণা করলো।

পাকিস্তান ইলেক্ট্রনিক মিডিয়া রেগুলেটরি অথরিটি (PEMRA) খ্রিস্টান ধর্মীয় বিষয়ের সাথে সম্পর্কিত 11 টি চ্যানেলের সম্প্রচার বন্ধ করে দিয়েছে। নির্দেশিকা অমান্যকারী ছয়টি ক্যাবল টিভি সম্প্রচারকদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

গত কয়েক শতক ধরে বেশ কয়েকটি চ্যানেলে বাইবেল অবলম্বনে খ্রিস্টীয় বার্তার সম্প্রচার করা হতো। যদিও পাকিস্তান একটি ইসলামিক স্টেট সেখানকার লোকেদের জন্য অসংখ্য ইসলামিক চ্যানেলও রয়েছে। PEMRA শুধুমাত্র ভিন্ন ধর্মের সম্প্রচারের বিষয়ে বাধা দিয়েছে।

Pakistani Christians in Islamabad protest the killing of a Christian couple who were burned alive for alleged blasphemy. Sohail Shahzad

খ্রিস্টান দম্পতিকে পুড়িয়ে হত্যা করার বিরুদ্ধে ইসলামাবাদে প্রতিবাদ করছে পাকিস্তানী খ্রিস্টানরা. Sohail Shahzad

সেপ্টেম্বর মাসে PEMRA খ্রিস্টান চ্যানেলের সম্প্রচারকে বেআইনী ঘোষনা করেছিল। এই বিষয়ে ক্যাবল অপারেটরদের জন্য একটি নোটিশও জারি করা হয়। এর মধ্যে ছয়টি চ্যানেল নির্দেশ অমান্য করে। একটি কঠোর ব্যবস্থা অনুসরণ করে সেই চ্যানেলের মালিকদের গ্রেফতার করা হয়।

বিদেশ থেকে সম্প্রচার করা হয় এমন সমস্ত খ্রিস্টান চ্যানেলেও অবরুদ্ধ করা হয়েছে। এর মধ্য সব থেকে পুরানো ক্যাথলিক টিভি,,Isaac টিভির সম্প্রচারও বন্ধ করে দেওয়া হয়। এই দুটি লাহোর থেকে পরিচালিত করা হতো।

একই সময়ে PEMRA লাইসেন্স নেই সেই সমস্ত ইসলামী চ্যানেলগুলির সম্প্রচারের অনুমতি দিয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে পিস টিভি,যার তারকা জাকির নায়েক। ঢাকার গুলশান রেস্টুরেন্টে হামলার অন্যতমঅভিযুক্ত।

PEMRA -র ছবি থেকে এটা স্পষ্ট যে পাকিস্তানে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের অধিকার কিভাবে লঙ্ঘন করা হচ্ছে। এর থেকে বোঝা যাচ্ছে ভবিষ্যতে সংখ্যালঘুদের অবস্হা আরও বিবর্ণ হবে।

Discussions