84 স্তম্ভের উপর দাড়িয়ে রয়েছে কাশ্মীরের মার্তান্দ সূর্য মন্দির

3:56 pm November 30, 2016


কাশ্মীরে অবস্হিত মর্যাদাপূর্ণ মার্তান্দ সূর্য মন্দির 84 স্তম্ভের উপর দাড়িয়ে রয়েছে। সূর্য দেবতাকে নিবেদিত করার উদ্দেশ্যে অষ্টম শতাব্দীতে নির্মিত হয়েছিল এই মন্দির। সূর্য দেবতার সংস্কৃত নাম হলো মার্তান্দ। মার্তান্দ সূর্য মন্দির নির্মাণ করেছিলেন কারকোটা রাজবংশের তৃতীয় শাসক ললিতাদিত্য মুক্তপিদা। বর্তমানে অনন্তনাগের কাছে একটি পাহাড়ে অবস্হিত রয়েছে এই মন্দিরের ধ্বংসাবশেষ।

অষ্টম শতাব্দীতে নির্মিত মন্দিরের চারপাশ 84 টি স্তম্ভের দ্বারা পরিবেষ্টিত। চতুষ্কোণ ইট দিয়ে নির্মিত মার্তান্দ মন্দির,সেই সময়ের শিল্পীদের দক্ষতাকে প্রতিফলিত করে। মন্দিরে প্রাথমিক প্রবেশদ্বার রয়েছে পশ্চিম দিকে। প্রবেশদ্বারটি বিশেষ জাঁকজমক ভাবে তৈরি করা হয়েছে। মন্দিরের দেওয়ালে খোদিত রয়েছে বিষ্ণু,গঙ্গা,যমুনার মতো দেবদেবীদের মূর্তি।

বরফে ঢাকা পাহাড়ের ওপর নির্মিত মার্তান্দ মন্দির থেকে সমগ্র কাশ্মীর উপত্যকা দেখতে পাওয়া যায়। সংশ্লিষ্ট ধ্বংসাবশেষে রয়েছে প্রত্নতাত্ত্বিক তথ্য।। বলা যেতে পারে কাশ্মীরি স্থাপত্যে রয়েছে গুপ্ত, চিনা, রোমান, সিরিয়ার-বাইজেন্টীয় ও গ্রিক স্হাপত্যের মিশ্রণ।


প্রচলিত হিন্দুরীতি অনুযায়ী, সত্যযুগে ভগবান বিষ্ণুর আশীর্বাদে কাশ্যপ পত্নী মাতা অদিতি মার্তান্দের জন্ম দিয়েছিলেন। তাঁর নামেই এই মন্দিরটি প্রতিষ্ঠা করা হয়। বলা হয় যে রাজা হর্ষবর্ধন সূর্য ওঠার সাথেই সূর্য মন্দিরে উপাসনা করে নিজের দিন শুরু করতেন।

মার্তান্দ মন্দির 60 ফুট লম্বা 38 ফুট চওড়া। 84 টি স্তম্ভের দ্বারা চারপাশ বেষ্টিত। দরজায় অবস্হিত খিলান মন্দিরের স্হাপত্যকে চিহ্নিত করে। পঞ্চদশ শতাব্দীতে মুসলিম শাসক সিকান্দার বুত্শিখান মন্দিরটি ধ্বংস করা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছিলেন।

আর্কেওলজিকল সার্ভে অফ ইন্ডিয়া মার্তান্দ সূর্য মন্দিরকে জম্মু ও কাশ্মীর জাতীয় গুরুত্বরূপে ঘোষণা করেছে।

Facebook Discussions