কেনিয়াতে পোড়ানো হলো কয়েক হাজার বন্দুক, জানুন কেন

1:05 pm 17 Nov, 2016


জাতিগত হিংসায় জর্জরিত কেনিয়ার রাজধানী নাইরোবিতে মঙ্গলবার প্রায় 5,250 বন্দুক পুড়িয়ে ফেলা হলো।

বিগত 6 মাস ধরে জঙ্গিদের বিরুদ্ধে চলা দীর্ঘ প্রচারাভিযানের সময় তাদের কাছ থেকে এই বন্দুকগুলো উদ্ধার করা হয়েছে।

এখনো পর্যন্ত কেনিয়ার সামরিক বাহিনী 5 লক্ষেরও বেশি আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার করেছে। এই অস্ত্রের মধ্যে 1 লক্ষেরও বেশি একে -47 রাইফেল রয়েছে।

এনবিসি নিউজ অনুযায়ী উপরাষ্ট্রপতি উইলিয়াম রুটো জানিয়েছেন, দেশে বন্দুক লাইসেন্সের নিয়ম আরও কঠোর করা হবে,যাতে এটি সহজে মানুষের কাছে পৌঁছাতে না পারে।

যে বন্দুকগুলো জ্বলানো হয়েছে সেই বন্দুকগুলো 9 বছর ধরে জঙ্গিদের কাছ থেকে উদ্ধার করে জমা করা হয়েছিল। কেনিয়া সরকার যাদের কাছে অবৈধ অস্ত্র আছে তাদের কাছে খোজ করছে এবং নিরাপত্তা কর্তৃপক্ষের কাছে তাদের অস্ত্র সমর্পণ করার নির্দেশও দিয়েছে।

2013 সালে কেনিয়ার রাষ্ট্রপতি নির্বাচিত হন উহুরো কেনিয়াত্তা। তারপর থেকে এখানে হিংসার পরিবেশ তৈরি হয়েছিল। অব্যাহত হিংসায় গত দুই বছরে কমপক্ষে 30 হাজার মানুষ নিহত হয়েছেন। কেনিয়া হিংসার দৌরাত্ম্যে মোকাবিলা করার জন্য সৈন্য মোতায়েন করা হয়েছে।

কয়েকদিন আগে নাইরোবিতে কয়েকশো কোটি হাতির দাঁত পোড়ানোর খবর সামনে এসেছিল।

এখানে একসঙ্গে 100 টনের অধিক হাতির দাঁত পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছিল। আন্তর্জাতিক বাজারে যার দাম ছিল 660 কোটি টাকা।

সেইক্ষেত্রে কেনিয়ার সরকার একটি আশঙ্কা করছে যদি হাতির দাঁতের চোরাচালানের জন্য তাদের এইভাবে শিকার করা হয় তাহলে পরবর্তী 50 বছরের মধ্যে এই পশু বিলুপ্ত হয়ে যাবে বলে মনে করা হচ্ছে।চিনে এই দাঁতের বিশাল চাহিদা রয়েছে।

Discussions