পুজোর আগে গোর্খা জনমুক্তি মোর্চার ডাকা বনধে তীব্র উত্তেজনা পাহাড়ে

12:37 pm 28 Sep, 2016


পৃথক গোর্খাল্যান্ডের দাবিতে বুধবার 12 ঘন্টা পাহাড় বনধর ডাক দিল গোর্খা জনমুক্তি মোর্চা। তবে রাজ্য প্রশাসন আগে থেকে সমস্ত তোড়জোড় শুরু করেছিল। মঙ্গলবার বনধকে বেআইনি বলে ঘোষণা করে হাইকোর্ট। দুটি মামলা একসাথে শোনার পর প্রধান বিচারপতি গিরীশচন্দ্র গুপ্তের ডিভিশন বেঞ্চ এই নির্দেশ দেয়।এই অবস্হায বনধে অনড় থেকে কিছুটা আত্মঘাতী সিদ্ধান্ত নিয়েছেন গুরুঙ্গ।

সকাল থেকে উত্তেজনা ছড়িয়েছে তিনটি মহাকুমায়। এর মধ্যে বনধকে অসফল করতে দফায় দফায় পুলিশ অভিযান চালানো হচ্ছে। টহল দিচ্ছে সিআরপিএফ। আটক করা হয়েছে কালিম্পংয়ের বিধায়ক সরিতা রাই এবং যুবমোর্চার সভাপতি বিনয় ঘিসিংকেও। অন্যদিকে বনধ ব্যর্থ করতে পাল্টা মিছিল চালাচ্ছে তৃণমূল কংগ্রেস ও জন আন্দোলন পার্টি। পেডংয়ে গাড়ি ভাঙচুড়ের অভিযোগ উঠেছে মোর্চার বিরুদ্ধে।

পাহাড়ের তিন শহরে নিজের তিনজন মন্ত্রীকে পাঠিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।রাজ্য পুলিশের এডিজি উত্তরবঙ্গ এন রমেশবাবু এবং 2 জন ডিআইজি,কলকাতার প্রথম সারির কয়েক জন আইপিএস অফিসারও দার্জিলিঙে পৌঁছেছেন।

পর্যটনের মরশুমে মানুষকে শান্ত থাকার আর্জি জানিয়েছেন পর্যটনমন্ত্রী গৌতম দেব। অন্যদিকে উত্তরবঙ্গের উন্নয়নমন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষ বলেন বনধ মানেই উন্নয়নের গতিস্তব্ধ।

Discussions