Viral Photos: সাধারণ দেখতে এই ছবিগুলি স্বামী ও স্ত্রী সম্পর্ক ভেঙে দিয়েছে!

author image
4:37 pm 17 Oct, 2016


আমরা সবাই ইংরেজিতে একটা কথা জানি সেটি হলো পিকচার স্পিক থাউসেন্ড অফ ওয়ার্ড অর্থাত্ ছবির জন্য কোনও শব্দের প্রয়োজন হয় না। ছবি নিজে থেকে সব গল্প বলে দেয়। কিন্তু সব গল্পের শেষ সবসময় সুখকর হয় না। সাধারণ দেখাতে এই ছবিগুলির মধ্যে রয়েছে এক গভীর রহস্য যা একটা সম্পর্ককে ভেঙে দেয়।

ওপরের এই ছবিটি দেখে মনে হবে এই দম্পতি যেন একে অপরের জন্য তৈরি হয়েছে কিন্তু একটা ক্লিক করা ছবি এদের সম্পর্ককে ভেঙে দিয়েছে।

এই ছবিটি সোশ্যাল মিডিয়াতে বহু পরিমাণে শেযার হয়েছিল। এই ছবিটে যে মেয়েটিকে দেখা যাচ্ছে তার স্বামী 20 দিনের জন্য বাইরে যাবে বলে এই ছবিটি তুলে ছিল ।কিন্তু এই ছবিতে এমন কিছু ছিল যা তাকে তার স্ত্রীর কাছ থেকে তালাক নিতে বাধ্য হয়।

ভালো করে দেখলে বোঝা যাবে খাটের নিচে মানুষের মতো দেখতে কেউ একটা রয়েছে। এই ছবিটা দেখার পর সেই মেয়াটার স্বামী বলেছিল তার স্ত্রীর অন্য কাউর সাথে সম্পর্ক রয়েছে তাই জন্য সে তাকে ছেড়ে দিতে চায়।

আপনি কি বিশ্বাস করতে পারেন কোনও বাবা নিজের সন্তানের কুশ্রী মুখের জন্য তার স্ত্রীকে তালাক দিয়ে দিতে পারে … কিছু এই রকম কাহিনী পরের ছবিতে দেখতে পারবেন।

এই ছবির পেছনে যে কাহিনী রয়েছে সেটা একটু আশ্চর্যজনক। এই ছবিটা একটা চাইনিজ পরিবারকে সুখী দেখাচ্ছে। এই পরিবার সামান্য কারণে আলাদা হয়ে গিয়েছিল। ছবিতে উপস্হিত ব্যাক্তির নাম জিয়ান ফিঙ্গ। বিশ্রী মেয়েকে জন্ম দেওয়ার জন্য ব্যাক্তিটি নিজের স্ত্রীর ওপর মামলা করে দিয়েছে। জিয়ান ফিঙ্গের মতে তাদের লাভ ম্যারেজ ছিল কিন্তু আমাদের মেয়ে হওয়ার পর থেকে সে দিনের দিনের পর দিন বিশ্রী দেখতে হয়ে যাচ্ছিল। আমি অনেক সময় তাকে দেখে ভয় পেয়ে যাই। জিয়ান আদালতে প্রমাণ পেস করেছে তার স্ত্রী প্লাস্টিক সার্জারি করেছে সেই কথা সে তাকে জানায়নি। এই মামলা জিয়ান জয়ী হয়েছে।

যখন মুখ থেকে মেকআপের মাস্ক পড়ে যায় তখন সামনে আসে এমন একটা ছবি যা ভালোবাসার সংজ্ঞাকে পাল্টে দেয় ………আসুন দেখুন!


আপনার কাছে সৌন্দর্য বেশি গুরুত্বপূর্ণ না হৃদয়। অধিকাংশ মানুষ বলবে বাইরের সৌন্দর্য থেকে ভেতরের সৌন্দর্য অনেক বেশি জরুরী। কিন্তু এই কাহিনী অন্যরকম। সুন্দর দেখা এতটা জরুরী যে যখন মেকআপ মুখ থেকে নামে তখন পুরো গল্প পাল্টে যায়!

এই কাহিনীটি হলো উওর আফ্রিকার। এই গল্পে এক নায়ক আছে যে বিয়ের জন্য একটা মেয়ের সাথে দেখা করে। 2 বার দেখা করার পর এই জুটি বিয়ে করার সিদ্ধান্ত নেয়। বিয়ের পরের দিন এই দম্পতির কাহিনী অন্য একটা মোড় নেয়। এই গল্পের নায়ক অর্থাত্ স্বামী এখন খলনায়ক হয়ে গেছে।

নিজের স্ত্রীর ওপর প্রতারণার মামলা দায়ের করেছে। স্বামীর অনুযায়ী পরের দিন সকালবেলায় ঘুম থেকে উঠে দেখে উনি যে মেয়েটার সাথে বিয়ে করেছেন সে একেবারে পাল্টে গেছে। মেকআপের ফলে পুরো মুখটা পাল্টে গিয়েছিল যার ফলে পুরো সম্পর্কটা পাল্টে যায়।

ফেসবুকে বসে নিজের জীবনের সুখের মুহুর্তগুলো শেয়ার করার সময় হঠাত্ আপনার সমনে এমন কিছু ছবি চলে আসলো যা আপনি বিশ্বাস করতে পারবেন না।

এই ছবিটা হলো লিজ লিনহামের যার স্বামী কাজের সুত্রে বাইরে থাকে আর হৈয়লে টোটেরডাল নামক এক মহিলার সাথে বিয়ে করে নেন। কিন্তু আশ্চর্যের বিষয় লিজ 3 বছর পর্যন্ত এই কথাটা জানতো না।

একদিন লিজ তার শাশুড়ির কাছ থেকে একটি চিঠি পায় যেখানে লেখা থাকে আমি দুংখিত যে তোমাদের তালাক হয়ে গেছে আর আদ্রিয়ান লিনহাম দ্বিতীয় বিয়ে করে নিয়েছে। ছবিতে আদ্রিয়ান হানিমুনে ঐ জায়গায় গেছে যেখানে লিজের সাথে গিয়েছিল।

কখনও কখনও যা দেখা যাচ্ছে সেই রকম হওয়া জরুরী তা নয়। ছবিতে সবাই হাসে কিন্তু আসল জীবনেও যে সে হাসবে এমন কিছু নয়।

Popular on the Web

Discussions



  • Co-Partner
    Viral Stories

TY News