কলকাতার ৬টি সর্বাধিক সল্পমুল্য অথচ সুস্বাদু খাবারের দোকান

10:57 am 30 May, 2016


কলকাতা কে প্রায়ই “সিটি অফ জয়” (উল্লাসের শহর) নামে অভিহিত করা হয়। কথাটা কিন্ত্ত খুব একটা সেকেলে নয়, এবং কোনো কারণ ছাড়াই কলকাতার এই নামকরণ হয়েছে এমনটাও নয়; না হলে আর কোন মহানগরে (কিংবা অন্যত্র) আপনি এত স্বল্প খরচে জীবনযাপন করতে পারবেন?

এই তালিকায় আমরা কলকাতার এমন কিছু রেস্তোরাঁর কথা বলব যারা অত্যন্ত সস্তা ও অত্যন্ত সুস্বাদু খাবার পরিবেশন করে। আপনি যদি খাদ্যরসিক হন তবে প্রস্তুত হন এই তালিকার জন্য-

1. প্যারামাউন্ট

হ্যাঁ হ্যাঁ আমি জানি এখনে রেস্তোরাঁর কথা হচ্ছে কিন্ত্ত এই শরবতের দোকানটির কথা না বললে গুরুতর অপরাধ করা হবে। এদের অসংখ্য ও বিভিন্ন ধরনের শরবতের মধ্যে একটি বেছে নেওয়া হয়তো আপনার খুবই কঠিন বলে মনে হতে পারে। এটি সস্তা ও পর্যাপ্ত এবং আপনার যাতায়াতের পথে একটি দারুন ও স্বাস্থ্যকর খাদ্য। আপনি যদি কলেজ স্ট্রিট বা সিয়াল্দাহে যান তবে আমাদের মতে আপনার অবশ্যই একবার এদের চকো মালাই শরবত চেখে দেখা উচিত। আমি বাজি ধরতে পারি আপনি আরো খেতে চাইবেনই।

2. দিলকুশা কেবিন

বহু বছর ধরে কলকাতার সর্বাধিক জনপ্রিয় খাবারের দোকানগুলির মধ্যে একটি হল দিলকুশা কেবিন, যেখানে আপনি সর্বদা মানুষের সমাগম দেখবেন কলকাতার সর্বশ্রেষ্ঠ কবিরাজি কাট্লেটের স্বাদ উপভোগ করার জন্য। এই পুরাতন জায়গাটির একটা নিজস্ব মাধুর্য আছে আর আছে এক বিস্তর মেনু যার থেকে আপনি আপনার পছন্দের খাবারটা বেছে নিতে পারেন। কলেজ স্ট্রিটে অবস্থিত এই রেস্তোরাঁয় মাত্র 300 টাকায় দুজনের এক বেলার ভোজন সেরে নেওয়া যায়।

3. গোলবাড়ি

কলকাতাবাসীদের মতে দুটি জিনিস আছে যা শ্যামবাজারকে (এটি উত্তর কলকাতার প্রধান চক্রকেন্দ্র) একটি স্থূল অভিন্নতা দেয়- একটি নেতাজীর ঘোড়ায় চড়া মূর্তি এবং অন্যটি গোলবাড়ি। এই ছোট্ট, প্রায় দম বন্ধ করা দোকানটি বহুকাল ধরে কলকাতার মানুষকে অতি সুস্বাদু মটন-কষা পরিবেষণ করে আসছে। এই একটি জায়গায় আপনি বেশি বিকল্প খাবার পাবেন না কিন্ত্ত তবুও দিনের যে কোনো সময়ে এখানে বসার জায়গায় পাওয়া একটি বিশাল ব্যাপার। এখানে গেলে অবশ্যই এদের মটন-কষা ও পরোটা ‘ কম্বো’ খেয়ে দেখবেন (মাত্র 155 টাকায়) – আপনার জিহ্বাকে আর কোনো কিছু এত তৃপ্তি দেবে না !


4. নিজাম্স

এরা কলকাতার প্রথম রেস্তোরাঁ যারা কলকাতার অতি প্রসিদ্ধ রোল বানানো শুরু করে, এবং আজও তারা তাদের এই খ্যাতি গর্বের সাথে বয়ে নিয়ে চলেছে। এই রেস্তোরাঁ হয়েতো খুব একটা জমকাল বা আড়ম্বরপূর্ণ নয় কিন্তু রান্নার শিল্পে এরা খুবই নিপুন। আপনি যদি গোমাংসের ভক্ত হন তবে এই জায়গাটি আপনার জন্য একদম সঠিক। তা না হলে আপনি এদের চিকেন ভর্তা ও চিকেন বিরিয়ানিও চেখে দেখতে পারেন। এই দুটিই অসাধারণ এবং সুস্বাদু। এখানে দুজনের ভোজনের দাম হবে 450 টাকার মধ্যে! এবং, একটি রোলের সর্বাধিক দাম হবে 62 টাকা (সর্বনিম্ন 27 টাকা)!

5. সিরাজ

মল্লিক বাজারে আপনি এই রেস্তোরাঁটির একটা নয় দু-দুটো শাখা দেখতে পাবেন, যদিও এদের খাবারের মাত্রা প্রায় একই। যাই হোক যদি আপনার পকেট খুব বেশি ভরা না থাকে এবং এপনি একটি ভালো মোঘলাই ভোজন করতে চান মাত্র 400 টাকার মধ্যে (2 জনের জন্য), তাহলে এর থেকে ভালো আর কোনো জায়গা হতেই পারে না। এদের বৈশিষ্ট হলো মটন পাসিন্দা, বিরিয়ানি এবং তন্দুরি চিকেন, তবে যদি আপনি হালকা কিছু খেতে চান তবে মাত্র 50 টাকায় এদের এগ-চিকেন রোল চেখে দেখুন- যেতে যেতে খাওয়ার জন্য উপযুক্ত খাবার!

6. আরসালান

এই মোঘলাই রেস্তোরাঁটি “পার্ক সার্কাস সাত মাথার মোড়ের মুখ” হিসেবে পরিচিত এবং এরা এখন এক দশকের বেশি হল কলকাতাবাসীদের জিহ্বাকে পরিতৃপ্ত করে চলেছে। এদের বৈশিষ্ট মোঘলাই রান্না, তবে এরা ততটাই দারুন পাঞ্জাবি খাবারও পরিবেশন করে। এখানে গিয়ে আপনি একটি চরম অন্যায় করবেন যদি আপনি এদের বিরিয়ানি, যেটিকে একমতে কলকাতার শ্রেষ্ঠ বিরিয়ানি বলা হয়, না খেয়ে দেখেন। এখানে এক প্লেট মটন বিরিয়ানির দাম 135 টাকা, আর যদি আপনি একটা প্লেট দুজনের মধ্যে ভাগ করে নিতে চান তবে এদের স্পেশাল বিরিয়ানি নিন- 200 টাকায় এটা দুজনের জন্য পরিপূরক ভোজন! বিরিয়ানির পাশাপাশি এদের কাবাবও আপনাকে মুগ্ধ করবে। এখানে দুজনের ভোজন সেরে নিন মাত্র 700 টাকায়, মানে ওটাই সর্বাধিক।

Popular on the Web

Discussions



  • Viral Stories

TY News