ক্যাশলেস অর্থনীতিতে সহজ হবে আর্থিক ব্যবস্থাপনা, জানুন 11 টি সুবিধা

নোটব্যানের ফলে হওয়া বিশৃঙ্খলা ও গুজবের মধ্যে একটি নতুন জিনিস শুনতে পাওয়া যাচ্ছে,ক্যাশলেস অর্থনীতি। অর্থাত্ সমস্ত লেনদেন ইন্টারনেটের মাধ্যমে করা যাতে টাকার ব্যবহার কমে যায়। নোটব্যানের ফলে আমারা অর্থনীতির বিভিন্ন সুযোগ সুবিধা সম্পর্কে জানতে পারছি। বর্তমানে নোটব্যান পরিস্হিতিতে ক্যাশলেস অর্থনীতিকে একটি বিকল্প হিসেবে দেখা যেতে পারে।

প্রতিরক্ষা মন্ত্রী দাবি করেছিলেন যে গোয়া ভারতের প্রথম ক্যাশলেস রাজ্য হবে। ভবিষ্যতে ভারত ক্যাশলেস অর্থনীতির জন্য কতটা প্রস্তুত সেটাই দেখার বিষয় হবে। আমেরিকার ইন্টারনাল রেভিনিউ সার্ভিসের রিপোর্ট অনুযায়ী 2008 থেকে 2010 সাল পর্যন্ত প্রত্যেক বছর প্রায় 458 লক্ষ কোটি টাকা ট্যাক্স চুরি করা হয়েছে। নোটব্যানের পর বলা হচ্ছে দুর্নীতি, সন্ত্রাস এই সমস্ত কিছু আটকানোর একমাত্র উপায় হলো ক্যাশলেস অর্থনীতি।

ক্যাশলেস অর্থনীতি সম্পূর্ণভাবে আলাদা তাই জন্য আপনারা কেউ গুজবে কান দেবেন না। এই ব্যবস্হার মাধ্যমে আমাদের দেশ আর আমরা কিভাবে উপকৃত হবো সেটা জেনে নিন।

1. ভারতের ডিজিটাইজেশ অনেক ঢাপ এগোবে

পুরো ভারতকে ইন্টারনেটের মাধ্যমে সংযোগ করানোর জন্য ডিজিটাল ভারত অভিযান চলছে। এই অভিযানের লক্ষ্য হলো 2016 র মধ্যে আড়াই কোটি মানুষকে ডিজিটাল ভাবে স্বাক্ষর করা। কারণ ক্যাশলেস অর্থনীতির সমগ্র কাঠামো ইন্টারনেটের উপর নির্ভরশীল। তাই এই অর্থনৈতিক ব্যবস্হার মাধ্যমে ডিজিটাইজেশন প্রক্রিয়াকে ত্বরান্বিত করা সম্ভব হবে।

2. উন্নতির জন্য ব্যাঙ্কের কাছে থাকবে অধিক মূলধন

ক্যাশলেস অর্থনীতির সবচেয়ে বড় সুবিধা হল এখন ব্যাঙ্কের কাছে অধিক মূলধন থাকবে,যা বেসরকারি খাতে বিনিয়োগ করা সম্ভব হবে। এই অর্থ বিকাশমুলক কাজে এবং বিভিন্ন প্রকল্পে ব্যায় করা সম্ভব হবে।

3. আধুনিক ব্যাঙ্কিং ও ট্যাক্স ব্যবস্হা

ক্যাশলেস অর্থনীতিতে আধুনিক ব্যাঙ্কিং ও কর ব্যবস্থার আধুনিকীকরণ হবে। এই প্রক্রিয়ার ফলে ব্যাঙ্কের কার্যকরী উন্নতি হবে এবং ট্যাক্স প্রক্রিয়া আরও ভালো হবে। এর ফলে আর্থিক লেনদেনের ওপর নজর রাখা সম্ভব হবে।

4. ডাকাতি, চুরি এবং ব্যাঙ্ক ডাকাতির মতো অপরাধের থেকে মুক্তি পাওয়া যাবে

ক্যাশলেস অর্থাত যখন নোটের চলন সমাপ্ত হবে অর্থাত্ সর্বনিম্ন স্তরে পৌছে যাবে তখন চুরি, ডাকাতির মতো অপরাধও কমে যাবে। একটি সার্ভের রিপোর্ট অনুযায়ী নোটব্যানের পর নভেম্বর মাসে ডাকাতি, চুরি, তোলাবাজি,গাড়ি চুরির মতো অপরাধমুলক কাজ হ্রাস পেয়েছে।

5. পরিবেশগত সুরক্ষা

আপনারা নিশ্চয়ই জানেন নোট ছাপানোর জন্য বিপুল পরিমাণে গাছ কাটা হয়। ক্যাশলেস অর্থনীতির ফলে পরিবেশ সুরক্ষিত থাকবে।

6. মধ্যস্থতাকারীদের বিলুপ্তি হবে

দুর্নীতির সবচেয়ে বড় কাঠামো হলো দালালচক্র। ক্যাশলেস অর্থনীতিতে লেনদেন ডিজিটাল এবং সহজবোধ্য প্রক্রিয়া হবে যার ফলে এই দালালদের সংখ্যাও কমবে।

7. বাড়ীতে আর্থিক ব্যবস্থাপনা

ক্যাশলেস অর্থনীতির আরেকটি সুবিধা হলো বাড়িতে বা অফিসে বসে আপনি শপিং,টিকিট বুকিং,বিল পরিশোধ করতে পারবেন।

8. ই-কমার্সের প্রচার হবে

ক্যাশলেস অর্থনীতির ফলে সবথেকে বেশি লাভবান হবে ই-কমার্স। অর্থনীতির এই কাঠামো ইন্টারনেটের উপর নির্ভরশীল যার ফলে ই-খাতে অপ্রতিরোধ্য ভাবে উন্নতি আসবে।

9. ডিজিটাল পেমেন্টে পরোক্ষভাবে নোট ও তার পরিবহনে ব্যায়ের ক্ষমতা অনেকটা কমে যাবে।

10. লেনদেন প্রক্রিয়ার আরও স্বচ্ছতা আসবে। ক্যাশলেস অর্থনীতিতে সরকারের কর সংগ্রহ করতে সুবিধা হবে।

11. নকল বা জাল নোট সম্পূর্ণভাবে শেষ হয়ে যাবে

অর্থনীতি ব্যবস্হায় সবথেকে বড় ক্ষতি হয় জাল নোট ছাপা র কারণে। কিন্তু ক্যাশলেস অর্থনীতিতে টাকা সর্বনিম্ন স্তরে পৌছে যাওয়ার ফলে এই নকল নোট থেকে পরিত্রাণ পাওয়া সম্ভব হবে।

Facebook Discussions