বলিউড কাঁপানো ৯ সুন্দরী বঙ্গতনয়া

2:34 pm 29 Apr, 2016


ভারতীয়দের সিনেমা দেখার বিভিন্ন কারণের মধ্যে একটি কারণই বিশেষভাবে সক্রিয়, সুন্দরী অভিনেত্রী ও অভিনেতাদের পর্দায় আগুন-জ্বালানো রসায়ন। অভিনেত্রী হওয়া সহজ কথা নয়, শীর্ষে থাকা আরও কঠিন। বলিউডে ভিনরাজ্যের তারকার কমতি নেই, তাঁদের অনেকেই প্রথম সারির হলেও, অনেক কাঠখড় পুড়িয়ে বাঙালি অভিনেত্রীরা বলিউডে নিজেদের আলাদা আসন করে নিয়েছেন।

নিচের তালিকাটি এমনই ক’জন বঙ্গললনাদের নিয়ে,বলিউডে যাঁরা ডাকসাইটেঃ

1. সুচিত্রা সেন

শ্রেষ্ঠ সুন্দরীদের একজন। কেরিয়ারের শুরু থেকেই বহু বাণিজ্যিক বাংলা ছবির এক নম্বর তারকা ছিলেন তিনি। কেবলই বাংলা চলচ্চিত্রে থেমে থাকেননি, সমানভাবে হিন্দি সিনেমা জগতেও তাঁর সৃজনশীলতার দৃষ্টান্ত রেখে গেছেন। “দ্বীপ জ্বেলে যাই”, “মুসাফির”,“মমতা” আর “আঁধি”–র মতো ছবিতে টের পাওয়া যায় তাঁর অভিনয়ের দক্ষতা। আর যদি “দেবদাস”–এ ওঁর ‘পারো’–কে দেখেন, তবে সঞ্জয় লীলা ভানশালীর “দেবদাস” ভুলে যাওয়াটাই স্বাভাবিক।

2. দেবিকা রানি

আপনি বলিউড-পাগল হলে আপনি নিশ্চয় এই অভিনেত্রীর মুখশ্রী ভুলবেন না। ইনি বলিউডের প্রথম দিকের ছবিতে অভিনয় করেছেন। “অছ্যু কন্যা” আর “কর্ম”। দেবিকা এবং ওঁর স্বামী, হিমাংশু রায় গড়েছিলেন বিখ্যাত ও সবচেয়ে পুরোনো চলচ্চিত্র স্টুডিও “বম্বে টকিজ”। উচ্চশিক্ষিতা, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের পরিবারের এই কন্যার খ্যাতির আরেকটি কারণ আছে। চলচ্চিত্র জগতের সবচেয়ে দীর্ঘ চুম্বন দৃশ্যে অভিনয় করে তিনি বিশ্ব রেকর্ড গড়েছেন!ইমরান হাশমির কানে কি এই খবরটি পৌঁছেছে?

3. জয়া বচ্চন

জয়া ভাদুড়ী নামে এককালে পরিচিত, বলিউডে চিরকালের প্রথম সারির নায়িকাদের মধ্যে তিনি একজন। সত্যজিত রায়ের “মহানগর” দিয়ে তাঁর চলচ্চিত্র জগতে পদার্পণ, তারপর আর পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। এফটিআইআই-পুণের এই প্রাক্তনীর পরিচয় তার অসামান্য অভিনয় দক্ষতা, সে বাণিজ্যিক ছবিই হোক আর নাই হোক। ওঁর অভিনয় ক্ষমতার কয়েকটি উদাহরণ-“কোশিশ”, “অনামিকা”,“মিলি”,“গুড্ডি”,“পরিচয়”।

4. কাজল

এই শ্যামলাসুন্দরী কোন ভারতীয়ের অচেনা? বিখ্যাত মুখার্জি পরিবারের এই মেয়ে অভিনয় ক্ষমতা তো বটেই, তাঁর সাবলীল ও সহজ চরিত্রের জন্যও জনপ্রিয়। যদিও দেবগণ-পত্নী হওয়ার পর থেকে তাঁকে রুপোলি পর্দায় কম দেখা গেছে, এখনও কিন্তু তিনি সেই আগের মতনই চার্মিং। ওঁর অভিনীত ছবিগুলোর মধ্যে আমাদের প্রিয় অবশ্যই “ডিডিএলজে”,“গুপ্ত”,“ফনা”।

5. কঙ্কণা সেনশর্মা

তথাকথিত সুন্দরী ঠিক নন, অথচ বুদ্ধি ও সৌন্দর্যের মেলবন্ধন তিনি। বিখ্যাত নায়িকা-পরিচালিকা অপর্ণা সেনের কন্যা চলচ্চিত্র জগতে পদার্পণ করেন বাংলা ছবিতে, পরে ভালো হিন্দি ছবিতে অভিনয় করেন, যেমন “ওয়েক আপ সিড্!”। যদিও ওঁর সমস্ত ছবিই দেখার মতো, বিশেষভাবে দেখার জন্য আমরা অবশ্যই বলব “আমু”,“মিস্টার অ্যান্ড মিসেস আইয়ার”, “ওমকারা”,“সানগ্লাস” ও “লাইফ ইন আ মেট্রো”-র কথা।


6. মৌসুমি চ্যাটার্জি

সাবলীল, সদা হাস্যময়ী। দর্শকের মন জয় করেছেন পর্দায় ঝগড়ুটে ও বিরক্ত মহিলাদের অভিনয় করে!এবং এব্যপারে তার দক্ষতা সর্বজনবিদিত। যদিও তিনি সেই সময়ের প্রথম সারির অভিনেতাদের সঙ্গে প্রচুর ছবি করেছেন, আমরা দেখতে বলব “বালিকা বধূ”, “পরিণীতা”, “অনুরাগ”, “রোটি,কপড়া অউর মকান”।

7. রাখি

“কভি কভি”, “শর্মীলি”, “বসেরা”, “কসমে ওয়াদে”, “শ্রীমান শ্রীমতী”,“পরমা”, “করণ অর্জুন”, “শুভ মহরত”…তাঁর দুর্ধর্ষ অভিনয়ের তালিকার শেষ নেই। রাখি এক পলকে দুষ্টু-মিষ্টি মেয়ে থেকে পরের মুহূর্তেই “হিরো”-র চিন্তিত মা হয়ে যেতে পারেন। এরকম চরিত্র করতে পারেন আর কে?মনে পড়ে? ভাবতে থাকুন…

8. শর্মিলা ঠাকুর

খ্যাতনামা ঠাকুর পরিবারের মেয়ে, সিনেমা জগতে পদার্পণের পিছনে সত্যজিৎ রায়, তপন সিংহ, ঋষিকেশ মুখার্জি, শক্তি সামন্তের মতো মানুষের বিশাল অবদান। সব রকমের সিনেমায় তাঁকে দেখা গিয়েছে, সে হাস্যরস হোক বা আধুনিক, পুরোপুরি বাণিজ্যিক হোক বা একটু অন্যরকম- তিনি সমান পারদর্শিতা দেখিয়েছেন। আমরা বলি ওঁর সব ছবিই দেখে ফেলুন, কারণ ওঁর শ্রেষ্ঠ ছবি আলাদা করে বের করা খুবই কঠিন!

9. রানি মুখার্জি

এই মৃগনয়নী বঙ্গতনয়া কাজলের বোন,এবং সেই বিখ্যাত বলিউডের মুখার্জি পরিবারের এক সদস্য। যদিও চলচ্চিত্র জগতে তিনি প্রথমে খুব একটা সাফল্যের মুখ দেখতে পারেননি, “কুছ্ কুছ্ হোতা হ্যায়” এবং “গুলাম”-এর মাধ্যমেই তাঁর প্রতিভার উত্তরণ। আমরা বলি, আপনি “গুলাম”, “বাণ্টি অউর বাবলি” এবং “ব্ল্যাক” দেখে ফেলুন।

Popular on the Web

Discussions