“প্রায় 30 বছর পর বাংলাদেশে থাকবে না একটাও হিন্দু”

4:48 pm 24 Nov, 2016


প্রায় 30 বছর পর বাংলাদেশে থাকবে না একজনও হিন্দু। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. আবদুল বরকত-এর অনুযায়ী প্রতিদিন গড়ে প্রায় 632 জন হিন্দু বাংলাদেশ ছেড়ে চলে যাচ্ছেন। যদি এই রকমই চলতে থাকে তাহলে শীঘ্রই বাংলাদেশে হিন্দু জাতির সংখ্যা শূন্য হয়ে পড়বে।

এই কথাটি বলা হয়েছে ড. আবদুল বরকত-এর পলিটিকাল ইকোনমি অফ্ রিফার্মিং এগ্রীকালচার-ল্যান্ড-ওয়াটার ইন্ বাংলাদেশ বইতে। এই বইটি প্রকাশনা করা হয়েছিল 19 নভেম্বর।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে এই বইটি প্রকাশনের সময় আবদুল বরকত দাবি করেছেন যে ধর্মীয় বৈষম্য ও হয়রানির কারণে 1964 থেকে 2013 র মধ্যে প্রায় 1 কোটি 13 লক্ষ হিন্দু বাংলাদেশ ছেড়ে দিয়ে চলে গেছেন। এই সংখ্যা প্রতিদিন গড়ে 632 করে হচ্ছে। এর অর্থ হলো প্রতি বছর 2,30,612 জন্য হিন্দু দেশ ছাড়ছেন।

30 বছরের গবেষণা ও পরিসংখ্যানের ভিত্তিতে আবদুল বরকত লিখেছেন, বাংলাদেশের মুক্তি সংগ্রামের সময় প্রতিদিন হিন্দু অভিবাসনের সংখ্যা ছিল 705. 1971-1981 সালের মধ্যে এই সংখ্যা ছিল 512. আবার 1981-1991 সাল পর্যন্ত প্রতিদিন গড়ে 438 জন হিন্দু পালিয়ে যাচ্ছেন। 1991-2001 র মধ্যে এই সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়ে হয়েছে 767. 2001-2012 সালে দেশত্যাগ করেছেন 774 জন।

hinduexistence

hinduexistence

এই অনুষ্ঠানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক অজয় রায় হিন্দুদের দেশত্যাগের বিষয়টি তুলে ধরেন। তিনি বলেন বাংলাদেশ তৈরি হওয়ার আগে পাকিস্তান সরকার বেনামী সম্পত্তির নামে বহু হিন্দুদের সম্পত্তি জব্দ করে নিয়েছিল। এমনকি স্বাধীনতার পরও, সরকার অন্তর্নিহিত সম্পদগুলির ওপর নিজেদের অধিকার স্হাপন করে। সেই কারণে 60 শতাংশ হিন্দু ভূমিহীন হয়ে পড়েছিলেন।

অনুষ্ঠানে উপস্হিত অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি কাজী ইবাদুল হক আইনসঙ্গতভাবে বলেন সংখ্যালঘু ও দরিদ্রদের তাদের ভূমি থেকে বঞ্চিত করা হয়েছে।

সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশে হিন্দুদের অনেক সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে।

Discussions