১৫টি নিরামিষ খাবার যা বাঙ্গালী রান্না সম্পর্কে আপনার ধারণাই পাল্টে দেবে

9:29 am 17 May, 2016


তুমি কি ভাব বাঙ্গালী খাবার মানেই মাছের ঝোল আর কষা মাংস? আজ্ঞে না। বাঙ্গালী রন্ধন প্রণালী শাকাহারীদের ও স্বর্গ।

বিশ্বাস হয়না? তবে জিভে জল আনা এই ১৫টি সম্পূর্ণ নিরামিষ খাবার চেখেই দেখনা।

১. আলু পোস্তঃ

জিভে জল আনা খাবার যা ভাতের সাথেও চলে আবার রুটি, লুচি চাপাতির সাথেও চলে, আলু পোস্ত , চটজলদি আলু আর পোস্ত দিয়ে তৈরি হয় আর বাঙ্গালিরা এতে আসক্ত। তুমি খেলে তুমিও আসক্ত হয়ে পরবে।

২. মোচার ঘন্টঃ

কলা ফুল মধ্যাহ্নভোজনে চলবে নাকি? মুখ বিকৃতি করলে এটা তোমার গরম ভাতের সাথে খেয়ে দেখা উচিত। জিভে জল আনা স্বাদ।

৩. ইচরের ডালনাঃ

কাঁচা কাঁঠালের ঝালঝাল তরকারি ছোট চিংড়ি মাছ দিয়েই সব থেকে ভালো হয়। নিরামিষ ও খুব ভলো খেতে হয়। অবশ্যই খাওয়া উচিত।

৪. পাঁচ মিশালী সবজিঃ

এটি বাঙ্গালী ধরনের পাঁচ মিশালী সবজি। পুজোর সময় খিচুরী আর লাবড়ার কথাই নেই। খিচুরির সাথে ইটা খেয়ে দেখো।

৫. বেগুন পোড়াঃ

পাঞ্জাবীরা যদি বেগুনের ভর্তায় গর্বিত হয়, তবে বাঙ্গালীর বেগুন পোড়া কোনো অংশে কম নয়। আর ইটা বানানোও খুব সহজ।

৬. কুমড়োর ছকাঃ

তোমার কুমড়ো জঘন্য লাগলে কুমড়োর ছকা লুচির সাথে চেখেই দেখ।

৭. ধোকার ডালনাঃ

মুসুর ডালের বড়ার ঝোল, ধোকার ডালনা নিরামিষ খাবারে মাছের ঝোলকে প্রতিস্থাপন করে।

৮. পুঁই শাকের চচ্চরিঃ

উত্তর ভারত যদি পালক পনিরের উদ্ভাবক হয়, তবে বাঙ্গালীদের বড়াই করার মত শাকের চচ্চরি আছে।

masalatize


৯. ডুমুরের ডালনাঃ

ডুমুর গাছের কাঁচা ফল দিয়ে তৈরি হয় পুষ্টিকর খাবার ডুমুরের ডালনা। বর্তমানকালের খাদ্যরসিকদের কাছে এর চাহিদা দিন দিন বাড়ছে।

১০. কাঁচকলার কোফতাঃ

যদি মোচা অসাধারণ হয় তবে বোঝাই যাচ্ছে কাঁচ কলার কোফতা কি রকম সুস্বাদু হবে।

১১. লাউ ঘন্টঃ

খুব হালকা ভাবে বানানো লাউঘ্ন্ট গরম কালের জন্য খুব আদর্শ।এটি ভাতের সাথে খাওয়াই শ্রেয়।

১২. থোরঃ

বাঙ্গালীরা কলাগাছের যথেচ্ছ ব্যবহার করে খাওয়ার ব্যাপারে, সে মোচাই হোক বা কাঁচকলার কোফতা বা থোর (কলাগাছের কান্ড)।এই সুস্বাদু খাবার টি অবশ্যই চেখে দেখুন।

১৩. কচু বা ওল ভাপেঃ

কখনো সর্ষে দিয়ে তৈরি কচু ভাপা গরম ভাতের সাথে খেয়েছ? তা বাঙ্গালীরা এমনই খাবার তৈরি করেছে এবং হলফ করে বলতে পারি আপনারও খুব ভালই লাগবে।এটি কম ক্যালরিযুক্ত খাবার। খাবেন নাকি?

১৪. ছানার কালিয়াঃ

তুমি যদি উত্তর ভারতের পনির টিক্কা মশলা বা শাহী পনির খেয়ে থাক তবে তোমার জিরে মৌরি ফোরনে টাটকা ছানা দিয়ে তৈরি ছানার কালিয়া অবশ্যই খাওয়া উচিত।এর স্বাদ মুখে লেগে থাকে।

১৫. শুক্তঃ

একমাত্র বাঙ্গালীরাই পারে তেতো জিনিসকে সুস্বাদু করে তুলতে। আগপাতে ঘি এর গন্ধযুক্ত গরম গরম শুক্ত, বোঝাই যায় প্রত্যেক বাঙ্গালীর গরমকালের আকাঙ্খা কেন।

চেখেই দেখাযাক এই খাবারগুলি।

Discussions



TY News